একেবারে ভরসা নেই রামদেবে, দুই রাজ্যে নিষিদ্ধ পতঞ্জলির করোনা ‘ভ্যাকসিন’

9

মহানগর ওয়েবডেস্ক: গোটা বিশ্ব করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করতে ভ্যাকসিন আবিষ্কার করতে ব্যস্ত। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কেউ সাফল্য লাভ করতে পারেনি। এদিকে দিনে দিনে সংক্রমন বৃদ্ধি পাওয়ায় আশঙ্কা আরও বাড়ছে। কিন্তু এরই মধ্যে হঠাৎ কৌতুহল উদ্দীপক দাবি করে বসেন বাবা রামদেব। জানানো হয়, রামদেবের সংস্থা পতঞ্জলি ‘করোনার ওষুধ’ বানিয়ে ফেলেছে! যদিও করোনিল নামের ওই ওষুধকে একেবারেই পাত্তা দিচ্ছে না মহারাষ্ট্র এবং গুজরাট। এই দুই রাজ্যে ওষুধ বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

দুই রাজ্যের তরফে জানানো হয়েছে, যতদিন না পর্যন্ত পতঞ্জলি প্রমাণ করতে পারবে যে এই ওষুধ করোনা সংক্রমণ কমায় বা এর চিকিৎসায় উপকারী, ততদিন পর্যন্ত এই ওষুধ বিক্রি করা যাবে না। এই প্রসঙ্গে কার্যত এক ধাপ এগিয়ে রাজস্থান সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, কাউকে যদি পতঞ্জলির এই ওষুধ বিক্রি করতে দেখা যায় তাহলে তার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। রামদেবের এই ওষুধ সম্পর্কে বলা হয়েছে, ভাইরাসের ওষুধ বিক্রির নামে প্রতারণা শুরু করেছেন যোগগুরু। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে পারে রাজস্থান সরকার।

এই ওষুধ নিয়ে কেন্দ্রীয় আয়ুশমন্ত্রকও সবুজ সংকেত দেয়নি। তাদের তরফেও স্পষ্ট জানানো হয়েছে, ভাইরাস চিকিৎসার সমস্ত গাইডলাইন পার না হওয়া পর্যন্ত একে করোনার ওষুধ বলে বিক্রি করা যাবে না। মহারাষ্ট্র এবং গুজরাটের মত উত্তরাখণ্ড সরকারও এই ওষুধের সম্পূর্ণ বিরোধী। তাদের দাবি, করোনাভাইরাস চিকিৎসায় ওষুধ ব্যবহারের কোনো লাইসেন্স নেই পতঞ্জলির। এই ওষুধ কোনভাবেই বিক্রি এবং ব্যবহার করা সম্ভব নয়।