ত্রিপুরায় করোনা আক্রান্ত মহিলারা জন্ম দিলেন ২২৫ জন সুস্থ নবজাতকের

19
baby

মহানগর ডেস্ক: করোনার ঢেউয়ে বিপর্যস্ত গোটা দেশ। গত এক বছরের মধ্যে দুটি ঢেউ আছড়ে পড়েছে ভারতে। আক্রান্ত হয়েছেন কয়েক কোটি মানুষ। বৃদ্ধ থেকে শুরু করে নবজাতক শিশু কেউই বাদ যায়নি করোনার থাবা থেকে। এই পরিস্থিতিতেও সম্পূর্ণ ভিন্ন ছবি দেখা গেল ত্রিপুরায়। গত বছর করোনা পরিস্থিতি এবং বর্তমান করোনা পরিস্থিতি মিলিয়ে মোট ২২৫ জন সন্তান সম্ভবা মহিলা ভর্তি হয়েছেন হাসপাতালে। তারা প্রত্যেকেই করোনা পজেটিভ থাকলেও কোনও শিশু করোনা আক্রান্ত হয়নি।

আগরতলা মেডিকেল কলেজের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, করোনার প্রথম ঢেউয়ের সময়ে ১৯৮ জন গর্ভবতী মহিলা করোনা আক্রান্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হন। যাঁদের মধ্যে ৬০ জন রোগীর সিজার করা হয়। পাশাপাশি দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় ২৭ জন করোনা আক্রান্ত গর্ভবতী মহিলা হাসপাতালে ভর্তি হন। প্রত্যেক গর্ভবতী মহিলা করোনা আক্রান্ত হলেও। কোনও সদ্যোজাত করোনা আক্রান্ত হয়নি। এই বিষয়ে হাসপাতালের গাইনোকোলজি বিভাগের ডাক্তার জয়ন্ত রায় জানিয়েছেন, ‘প্রায় ২২৫ জন করোনা আক্রান্ত মহিলা সন্তান প্রসব করেছিলেন। তবে, সদ্যোজাতদের কেউই করোনা আক্রান্ত ছিল না। প্রত্যেক চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্য কর্মীরা অত্যন্ত যত্নের সঙ্গে দেখা শোনা করেছেন সদ্যোজাতদের।’

এছাড়াও তিনি জানিয়েছেন, ‘সন্তান সম্ভবা মহিলাদের যত্ন নেওয়া যথেষ্ঠ কষ্টসাধ্য ছিল। কারণ তাদের যত্নের পাশাপাশি শিশুদের সুরক্ষার কথাও মাথায় রাখতে হত।’এই বিষয়ে আগরতলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সুপারেনটেনডেন্ট ডক্টর সঞ্জীব দেব জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকেই আগরতলা মেডিক্যাল কলেজ এবং গোবিন্দ বল্লভ পন্থ হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত গর্ভবতী মহিলাদের জন্য একটি নির্দিষ্ট ইউনিটের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। যাতে তারা উপযুক্ত যত্ন পান।