শেষ দশ বছরে রনথম্বোর থেকে ‘নিখোঁজ’ ৩০টি বাঘ! বন্যপ্রাণ দিবসে চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট

39
national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ৩ মার্চ, বিশ্ব বন্যপ্রাণ দিবস। আর এহেন দিনেই এমন একটি রিপোর্ট প্রকাশ্যে এসেছে, যা নিয়ে চিন্তার ভাঁজ ভারতের বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞদের কপালে। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা টাইগার ওয়াচের রিপোর্ট অনুযায়ী, রনথম্বোর ব্যাঘ্র সংরক্ষণ প্রকল্প থেকে প্রতি বছরে গায়েব হয়ে যাচ্ছে অন্তত তিনটি করে বাঘ! সম্প্রতি রাজস্থান সরকারের একটি রিপোর্ট ফাঁস হয়ে যায়। আর ওই রিপোর্টটি তৈরি করেছিলেন প্রকল্পের ফিল্ড ডিরেক্টর মনোজ পরাশর। তাতে উল্লেখ, ২০১০ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে ওই অরণ্য থেকে গায়েব হয়ে গিয়েছে ২৬টি বাঘ।

তবে টাইগার ওয়াচের দাবি, ২০০৯ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে আদতে রনথম্বোর থেকে গায়েব হয়ে গিয়েছে ৩০টি বাঘ। টাইগার ওয়াচের হয়ে বায়োলজিস্ট ধর্মেন্দ্র খান্ডাল জানান, ‘সব থেকে বেশি চিন্তার হল ওই ৩০টি বাঘের মধ্যে ২৩টি একেবারে জোয়ান বাঘ।’

তিনি আরও বলেন, অনেক বাঘই সাধারণ নিয়মেই প্রাণ হারায়। সব মৃত্যুর রেকর্ড রাখা সম্ভব হয়ে ওঠে না। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে যে কোটি বাঘের মৃতদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে তার মধ্যে মাত্র দুটির মৃত্যু বয়সের কারণে হয়েছে (মছলি ও বিগ ড্যাডি)।

তবে মজার ব্যাপার হল, শেষ ১৫ বছরে রনথম্বোরে বাঘের সংখ্যা ১৮ থেকে বেড়ে ৬৫ হয়েছে। কিন্তু টাইগার ওয়াচের রিপোর্ট অনুযায়ী, সব বাঘ বেঁচে থাকলে এই মুহূর্তে সেখানে বাঘের সংখ্যা হত ১৩৮। কিন্তু শেষ দশ বছরে ৩০টি বাঘ গায়েব হওয়ার পাশাপাশি, ২৬টি মারা যায় – তার মধ্যে দুটি বয়সের কারণে, ১১টি এলাকা দখলের লড়াইয়ে, দুটি উদ্ধারকার্যের সময়, পাঁচটি বিষক্রিয়ায়, একটা চোরাশিকারের ফলে, বাকি পাঁচটির মৃত্যুর কারণ অজ্ঞাত, আর ১৮টি অন্যত্র চলে গিয়েছে বা সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

যদিও সরকারি রিপোর্টে ২৬টি বাঘ গায়েব হয়ে যাওয়ার উল্লেখ রয়েছে। আর এই নিয়েই স্থানীয় বিজেপি সাংসদ দিয়া কুমার কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রী প্রকাশ জাভরেকরের দ্বারস্থ হয়েছেন। রাজ্য সরকারের রিপোর্টে অসঙ্গতি ও বাঘেদের গায়েব হয়ে যাওয়া নিয়ে বিশেষ তদন্ত করার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। এই নিয়ে হইচই শুরু হতেই রাজস্থানের চিফ ওয়াইল্ড লাইফ ওয়ার্ডেন অরিন্দম তোমার আবার ১৫ দিনের মধ্যে চিফ কনজার্ভেটর অফ ফরেস্টের কাছে তদন্ত করে রিপোর্ট দাখিল করতে বলছেন।

এই বাঘ গায়েব আর মৃত্যু নিয়ে বিজেপির দিকেই আঙুল তুলেছে কংগ্রেস। স্থানীয় কং নেতৃত্বের দাবি, পূর্ববর্তী বিজেপি সরকারের আমলেই সবচেয়ে বেশি বাঘের মৃত্যু হয়েছে। ২০১৪ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে অর্থাৎ বসুন্ধরা রাজের আমলে প্রায় ১৫টি বাঘ গায়েব হয়ে যায়। অন্যদিকে, ২০০৪-০৫ সালের মধ্যে সরিস্কা অভয়ারণ্য থেকে ১৭টি বাঘ গায়েব হয়ে গিয়েছিল।