দেশ জুড়ে আকাল, তারমধ্যেও নষ্ট হয়েছে ৪৭ লক্ষ করোনার টিকা

11
kolkata news

মহানগর ডেস্ক:  দেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ। তার সঙ্গে দেখা দিয়েছে করোনা ভ্যাকসিনের আকাল। বিভিন্ন রাজ্যের একাধিক কেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে টিকার অভাবে। এই পরিস্থিতিতে একটি রিপোর্টে চক্ষু চড়কগাছ। গত ১১ এপ্রিল পর্যন্ত  মোট ৪৭ লক্ষ ভ্যাকসিন নষ্ট হয়েছে। সেই ভ্যাকসিন নষ্টের তালিকায় একেবারে শীর্ষে রয়েছে তামিলনাড়ু।

একটি রিপোর্টে জানানো হয়েছে, তামিলনাড়ু, হরিয়ানা, পঞ্জাব, মনিপুর ও তেলেঙ্গানায় ব্যাপক পরিমাণে করোনা ভ্যাকসিনের অপচয় হয়েছে।  রিপোর্টে জানানো হয়েছে ৪৭ লক্ষ ৭৮ হাজার করোনা টিকা নষ্ট হয়েছে। দেশে এখনও পর্যন্ত মোট ১২ কোটি মানুষে করোনার টিকার অধীনে নিয়ে আসা হয়েছে। তবে দেশের বিভিন্ন রাজ্য ইতিমধ্যে করোনা ভ্যাকসিনের ঘাটতি রয়েছে বলে অভিযোগ করেছে। সেই অভিযোগের একেবারে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। মহারাষ্ট্র সরকার বার বার অভিযোগ করেছে, বিজেপি শাসিত রাজ্যে কেন্দ্র বেশি করে করোনার ভ্যাকসিন পাঠাচ্ছে। সেই অভিযোগ অস্বীকার করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযুশ গোয়েল জানিয়েছেন,  মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে করোনা নিয়ে রাজনীতি করছেন। মহারাষ্ট্রের পাশাপাশি পঞ্জাব, তেলেঙ্গানা, দিল্লি, অন্ধ্রপ্রদেশ করোনার ভ্যাকসিনের ঘাটতি পড়েছে বলে অভিযোগ করেছে।

প্রসঙ্গত, আগেই একটি রিপোর্টে জানানো হয়েছে, দেশে করোনার এই ভয়াবহ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রয়োজন ব্যাপক করোনার টিকাকরণ। দিল্লি সরকার অনেক আগেই করোনার টিকার বয়স সীমা তুলে দেওয়ার আবেদন করে। সমস্ত পরিস্থিতি বিচার করে, কেন্দ্র সরকার জানিয়েছে, ১ মে থেকে  ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে যে কেউ করোনার ভ্যাকসিন নিতে পারবেন। তবে একনই করোনার টিকার ঘাটতি দেখা দিয়েছে। বয়সের সীমা তুলে দিলে কী পরিস্থিতি হবে সেই নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। তবে এই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী সংস্থার সঙ্গে বৈঠকে বসবেন বলে জানা গিয়েছে।