দ্বিতীয় ঢেউয়ে বাড়ছে উদ্বেগ, করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রীর

10
up minister

মহানগর ডেস্ক: করোনায় মৃত্যু হল উত্তরপ্রদেশের এক মন্ত্রীর। লখনউয়ের একটি হাসপাতালে মঙ্গলবার যোগীর মন্ত্রিসভার এক সদস্যের মৃত্যু হয়। তাঁর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসার পরেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। মৃত মন্ত্রীর নাম হনুমান মিশ্র।

করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসার পরেই হনুমান মিশ্রকে সঞ্জয় গান্ধি পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সে ভর্তি করা হয়। সেখানেই মঙ্গলবার তাঁর মৃত্যু হয়। হনুমান মিশ্রের আগে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের করোনা হয়। তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল। তিনি বর্তামনে হোম আইসোলেশনে রয়েছে।  সারা দেশের পাশাপাশি উত্তরপ্রদেশে করোনা সংক্রমণ বেড়ে গিয়েছে। করোনা সংক্রমণ রুখতে উত্তরপ্রদেশে সপ্তাহন্তে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

শুধু উত্তরপ্রদেশ নয়, মহারাষ্ট্র, কর্ণাটকেও সপ্তাহন্তে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। তেলেঙ্গানায় জারি করা হয়েছে নাইট কারফিউ। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মহারাষ্ট্র।  মহারাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৮, ৯২৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৫১ জনের। এই পরিস্থিতি নতুন করে কঠোর করোনা বিধি লাঘু করল মহারাষ্ট্র সরকার। মহারাষ্ট্র সরকার কখনও নাইট কারফিউ তো কখনও সপ্তাহান্তে লকডাউন ঘোষণা করছে। তাতেও করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না। করোনা সংক্রমণ ক্রমেই লাগাম ছাড়া হয়ে উঠছে মহারাষ্ট্র।

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে নয়া নির্দেশিকায় মহারাষ্ট্র সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, মুদিখানা দোকান, সবজি দোকান ও ডেয়ারিগুলো সকাল সাতটা থেকে ১১টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। হোম ডেলেভারি দোকানগুলো সকাল সাতটা থেকে রাত্রি আটটা পর্যন্ত খোলা থাকবে।