Home Featured UK Teen Death : অনলাইনের নেতিবাচক বিষয়ে লাগামছাড়া অবসাদ, ব্রিটেনে কিশোরীর মৃত্যুতে কাঠগড়ায় সোশ্যাল মিডিয়া!

UK Teen Death : অনলাইনের নেতিবাচক বিষয়ে লাগামছাড়া অবসাদ, ব্রিটেনে কিশোরীর মৃত্যুতে কাঠগড়ায় সোশ্যাল মিডিয়া!

by Mani Sankar Debnath

মহানগর ডেস্ক: যারা দিনের বেশির ভাগ সময়টাই স্মার্ট ফোন (Smart Phone) বা কম্পিউটারে বুঁদ হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা বিযয় দেখে, তাদের জন্য খারাপ খবর। অনলাইনে কিছু বিষয়ের নেতিবাচক প্রভাবে (Effect Of Negativity) অবসাদের কারণে ব্রিটেনে (Britain) এক কিশোরীর তিলে তিলে মৃত্যু এবার গুরুতর প্রশ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে দিল সোশ্যাল মিডিয়াকে (Social Media)। উত্তর লন্ডনের করোনার কোর্টে মলি রাসেল নামে এক চোদ্দ বছরের এক কিশোরীর মৃত্যুর কারণ হিসেবে আইনজীবী জানান ওই কিশোরীর মধ্যে অনলাইনের বিষয় নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছিল, যার ফলে সে অবসাদে আক্রান্ত হয়। যা আরও গুরুতর অবসানজনিত অসুখের দিকে তাকে ঠেলে দেয়।

করোনার কোর্ট আইনজীবী জানান, অবসাদে ভোগার সময় মলি রাসেল নিজের অজান্তেই ক্ষতি করে বসে। তবে একে আত্মহত্যা বলাটা সঙ্গত হবে না। অনলাইনে ওই কিশোরী কিছু বিষয় দেখেছিল তা বিশেষ করে গ্রাফিক্স ছিল এবং তার মানসিক পরিস্থিতিকে স্বাভাবিক করার বদলে অবসাদগ্রস্ত করে তুলেছিল। তার মৃত্যুর আগে ছ মাসে অনলাইনে ১৬,৩০০ পোস্টের মধ্যে যেগুলি মলি রাসেল শেয়ার বা ইনস্টাগ্রামে লাইক করেছিল,যার মধ্যে ২,১০০টি অবসাদ, আত্মহত্যা সংক্রান্ত। ২০১৭ সালের নভেম্বরে উত্তর পশ্চিম লন্ডনের হ্যারো অঞ্চলের বাসিন্দা ওই কিশোরীর মৃত্যু হয়। তারপরই তার পরিবার সোশ্যাল মিডিয়ার ক্ষতিকর দিকটি প্রচার শুরু করে।

মলির বাবা ইয়ান জানান তাঁদের মেয়ে অত্যন্ত চিন্তাশীল ছিল এবং যথেষ্ট মিষ্টি স্বভাবের। প্রচণ্ড অনুসন্ধিৎসা ছিল তার মধ্যে। নিঃস্বার্থও ছিল। এত কম কথায় তার সম্পর্কে বলা যাবে না। ইয়ান আরও জানান মেটা (ইনস্টাগ্রামের পেরেন্ট সংস্থা)-র এগজিকিউটিভ নাকি বলেছিলেন ওই ভয়ঙ্কর বিষয়গুলির মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্মের সমাধান পদ্ধতি মলি রাসেলকে নিরাপদ থাকার ব্যাপারে সাহায্য করেছিল। যদিও তা মানতে চাননি ইয়ান। সাফ জানিয়েছেন যদি তাই হতো,তাহলে তাঁদের মেয়ে বেঁচে থাকতো। মারা যেতো না।

You may also like

Leave a Comment