Home Featured Khosta-2 : করোনার পর এবার মারণ ভাইরাস খোস্টা টুয়ের চোখ রাঙানি, অতিমারির আশঙ্কা !

Khosta-2 : করোনার পর এবার মারণ ভাইরাস খোস্টা টুয়ের চোখ রাঙানি, অতিমারির আশঙ্কা !

by Mani Sankar Debnath
another deadly virus detected

মহানগর ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে মারণ ভাইরাস করোনার (Severe Outbreak Of Covid 19) দাপাদাপির পর আবার নয়া ভাইরাসের চোখ রাঙানি শুরু। নয়া ভাইরাসের নাম খোস্ট-টু (Khosta-two)। বাদুরদের মধ্যে পাওয়া (Infected From Bat) এই ভাইরাস মানুষের পক্ষে খারাপ খবরই বয়ে আনতে চলেছে। নতুন এই ভাইরাস শুধু মানবদেহেই সংক্রমণ করে না। বর্তমানে যেসব ভ্যাকসিন রয়েছে, তা প্রতিরোধ করতে সক্ষম। মার্কিন বিজ্ঞানীরা এই ভাইরাসের খোঁজ পেয়েছেন। এনিয়ে প্লস প্যাথোজেনস ম্যাগাজিনে তাঁদের গবেষণা (Research) সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে এই নয়া ভাইরাস কোভিডের কারণ সার্স-কোভ-টু প্রতিরোধী ভ্যাকসিন যাঁরা নিয়েছেন, তাঁদের অ্যান্টিবডিকে (anti bOdY) নষ্ট করে দিতে সক্ষম, যা চিকিৎসকদের আতঙ্ক বাড়িয়েছে।

২০২০ সালে বাদুরের মধ্যে এই নয়া ভাইরাস প্রথম খুঁজে পাওয়া যায় রাশিয়ায়। তবে সেইসময় বিজ্ঞানীদের কেউ ভাবেননি এই নয়া ভাইরাস মানুষের পক্ষে বিপজ্জনক হতে পারে। বিজ্ঞানীরা নিরলস গবেষণা চালানোর পর তাঁরা জানতে পারেন এই ভাইরাস মানবদেহে সংক্রমিত হতে পারে এবং জনস্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে সম্ভাব্য ঝুঁকির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। খোস্টা টু ও সার্স কোভ-টু খোস্টা টু ভাইরাস সার্বেকোভাইরাসে রয়েছে। এটি করোনা ভাইরাসের সাবগ্রুপ বলেই চিহ্নিত করেছেন বিজ্ঞানীরা।

টাইম ম্যাগাজিনের মতে, এর আগে খোস্টা টু-য়ের সম্পর্ক রয়েছে,রাশিয়ায় বাদুরদের মধ্যে এমন একটি ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল। তবে মানুষের দেহের কোষে তা প্রবেশ করতে সক্ষম ছিল না। তবে খোস্টা-টু-এর পক্ষে তা সম্ভব। এই ভাইরাসের একই ধরণের প্রোটিন রয়েছে।এক গবেষক জানিয়েছে, ভাইরাস সব সময়ই অনুপ্রবেশের রাস্তা খোঁজে। মানবশরীরে সেই রাস্তা রয়েছে। ফলে আশঙ্কা বাড়ছে ভয়ঙ্কর রকমের সংক্রমণের। সবমিলিয়ে করোনার পর এটিই হতে চলেছে সম্ভাব্য অতিমারির কারণ।

You may also like

1 comment

974 November 2, 2022 - 8:34 pm

Hello! I understand this iss kind of off-topic however I had tto
ask. Doess bulding a well-established blog like yours takee a
lot oof work? I’m brand new to bloggiong but I do wrrite in myy jouurnal
on a dsily basis. I’d like tto start a blog so I wilol be able tto shre
myy experience and thoughts online. Please leet mme know
iff yyou have anny idesas or tils ffor nnew aspiring blpog owners.
Appreciate it!

Reply

Leave a Comment