Narendra Modi: অগ্নিপথ ইস্যু নিয়ে আজ তিন সেনাপ্রধানের সঙ্গে বৈঠক প্রধানমন্ত্রীর

56
Narendra Modi: অগ্নিপথ ইস্যু নিয়ে আজ তিন সেনাপ্রধানের সঙ্গে বৈঠক প্রধানমন্ত্রীর

মহানগর ডেস্ক: কেন্দ্রের অগ্নিপথ প্রকল্প নিয়ে ইতিমধ্যেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে শুরু হয়ে গিয়েছে বিক্ষোভ। তারই মাঝে আজ অর্থাৎ মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী ভারতীয় সেনাবাহিনী, ভারতীয় নৌবাহিনী এবং ভারতীয় বিমাবাহিনীর সেনাপ্রধানদের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে বসবেন বলে জানা গিয়েছে।

আজ এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে নরেন্দ্র মোদিকে অবহিত করবে তিন সেনাপ্রধান, এমনটাই জানা গিয়েছে। সোমবার অগ্নিপথ প্রকল্প নিয়ে প্রথম বারের জন্য মুখ খুলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেছিলেন যে কয়েকটি সিদ্ধান্ত প্রথম পর্যায়ে তিক্ত মনে হলেও আগামী দিনে সেগুলো সুফলই দেবে। অন্যদিকে বেশ কয়েকজন ব্যবসায়িক সংস্থাও কেন্দ্রের এই প্রকল্পকে সমর্থন জানিয়েছে। যেমন মাহিন্দ্রা গ্রুপের চেয়ারম্যান আনন্দ মাহিন্দ্রা, টাটা সন্সের চেয়ারম্যান এন চন্দ্রশেখরন এবং বায়োকনের চেয়ারপার্সন কিরণ মজুমদার সাউ এই প্রকল্পটিকে সমর্থন করেছেন৷ এদিকে, ভারতীয় সেনাবাহিনী অগ্নিপথ প্রকল্পের অধীনে অগ্নিবীরদের নিয়োগের জন্য প্রথম বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। জানা গিয়েছে যে এই বছরের জুলাইয়ে নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু হতে চলেছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, চলতি সপ্তাহে এর আগেও অগ্নিপথ প্রকল্পের বিরুদ্ধে তোপ দেগে মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছিল কংগ্রেস নেতাকে। তিনি বলেছিলেন,”অগ্নিপথ প্রকল্পটি বিতর্কিত, একাধিক ঝুঁকি বহন করে, সশস্ত্র বাহিনীর দীর্ঘস্থায়ী ঐতিহ্য এবং নীতিকে বিপর্যস্ত করে এবং এই প্রকল্পের অধীনে নিয়োগকৃত সৈন্যরা দেশকে রক্ষা করার জন্য আরও ভাল প্রশিক্ষিত এবং অনুপ্রাণিত হবে এমন কোনও গ্যারান্টি নেই।”

বস্তুত, গত সপ্তাহে ‘অগ্নিপথ’ মডেলের ঘোষণা করেছিল কেন্দ্র। জানান হয়েছিল যে সেই মডেলের আওতায় চার বছরের জন্য দেশের তিন সামরিক বাহিনীতে যুবক-যুবতীদের নিয়োগ করা হবে। চার বছরের চাকরির শেষে ৭৫ শতাংশ ‘অগ্নিবীর’-দের অব্যাহতি দেওয়া হবে। সেইসময় তাঁরা মোটা অঙ্কের প্যাকেজ পাবেন। সেইসঙ্গে কেন্দ্র জানিয়েছে, বিভিন্ন সরকারি চাকরিতে ‘অগ্নিবীর’-দের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।যদিও সামরিক বাহিনীতে চাকরির জন্য যাঁরা প্রস্তুতি নিচ্ছেন, তাঁদের দাবি, ‘অগ্নিপথ’ প্রকল্পের ফলে তাঁদের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। তা নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিহার, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, হরিয়ানার মতো রাজ্যে আগুন জ্বলেছে। লাগামছাড়া হিংসাত্মক ঘটনার সাক্ষী থেকেছে বিহার। ছাপরা, ভাভুয়া রোডের মতো স্টেশনে জ্বালিয়ে দেওয়া হয় ট্রেন। শুক্রবার তাণ্ডব চলেছে তেলাঙ্গানার সেকেন্দ্রাবাদে। সেখানে গুলিও চলেছে। মৃত্যু হয়েছে একজনের।

অগ্নিপথ প্রকল্প’ -এর বিরোধিতায় দেশজুড়ে শুরু হওয়া প্রতিবাদ এবং অশান্তির মধ্যেই ঢোঁক গিলতে হয়েছে কেন্দ্রকে। এই প্রকল্পে আবেদনের জন্য বয়সের ঊর্ধ্বসীমা ২১ বছর থেকে বাড়িয়ে করা হয়েছে ২৩ বছর ৷ কিন্তু, তাতেও বিক্ষোভ বাগে আসেনি।