জেএনইউ আমাদের ঘর, আরএসএস-বিজেপি এটা কেড়ে নিতে পারবে নাঃঐশী

7
aishe ghosh, jnu, abvp, rss

Highlights

  • “সংগঠিত সন্ত্রাস চালানো হয়েছে”
  • “এবিভিপি-আরএসএস-র সংগঠিত হামলা”
  • অভিযোগ জেএনইউ ছাত্রনেত্রী ঐশীর

মহানগর ওয়েবডেস্ক: লোহার রডের জবাব তাঁরা দেবে। প্রতিটা আঘাতের জবাব দেওয়া হবে। যোগ্য জবাব দেওয়া হবে। তবে সংবিধান মেনে। সোমবার জেএনইউ ক্যাম্পাসে অদম্য ইচ্ছা শক্তি নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে জোরদার লড়াইয়ের ডাক দিলেন জেএনইউ ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষ। এদিন তিনি পরিষ্কার করে দেন, এভাবে বর্বরোচিত হামলায় পড়ুয়ারা তো ঘাবড়ে যাবেই না বরং পেশী শক্তির বিরুদ্ধে সুর আরও চড়াবে। এদিন ঐশীর বক্তব্যে ক্যাম্পাস জুড়ে আন্দোলনের সুর আরও তীব্র হয় উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে। পুরো ঐশীর দাবি পুরো ঘটনার দায় আরএসএস-এবিভিপির। এর বিরুদ্ধে আরও জোরদার আন্দোলনে নামবে পড়ুয়ারা। পরিষ্কার বার্তা দিলেন বাংলার মেয়ে দিল্লির ছাত্রনেত্রী ঐশী।

ঐশীর অভিযোগ, সংগঠিত আক্রমণ করা হয় ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর। কারণ প্রত্যেকের নাম নিয়ে নিয়ে মারা হচ্ছিল। সবাইকে চিহ্ণিত করছিল গুন্ডারা। শুধু তাই নয়, কয়েকদিন আগেই বেশ কয়েকজন অধ্যাপক ক্যাম্পাসের মধ্যেই পড়ুয়াদের শাসাচ্ছিলেন। প্রত্যেক ছাত্রকে ভয় দেখাচ্ছিলেন। অধ্যাপক অশ্বিণীকুমার মহাপাত্র-র নাম উল্লেখ করেন, ঐশীর বক্তব্য তিনিই সব ছাত্র-ছাত্রীদের ভয় দেখাচ্ছিলেন। তাঁর মত অধ্যাপক জেএনইউতে রয়েছেন, এটা ভীষণই লজ্জার বিষয়।

রবিবার হস্টেল ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে ক্যাম্পাসের মধ্যেই আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছিলেন পড়ুয়ারা। এরপর হঠাৎই ক্যাম্পাসের মধ্যে এবিভিপির সদস্যরা মুখ ঢেকে প্রবেশ করে। লোহার রড, হাতুড়ি নিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর আক্রমণ চালায়। তবে ছাত্র সংগঠন একেবারেই হিংসাত্মক পথ নেয়নি। অহিংস পথেই আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব এটাই আমাদের শিক্ষকরা শিখিয়েছেন। জেএনইউ শিক্ষক সংগঠনের শিক্ষকরা আমাদের আন্দোলনের সঙ্গে রয়েছেন। তাঁরাই আমাদের সম্পূর্ণ সমর্থন করেছেন। গণতান্ত্রিক আন্দোলনেই দাবি আদায় করা ও বিভিন্ন আক্রমণের বিরুদ্ধে জয় পাওয়া যায় তা আমাদের শিক্ষক-শিক্ষিকারা সিখিয়েছেন। বলেন, ঐশী। ক্যাম্পাসে সেই সময় প্রায় ৩০০ ছাত্র ছিল। সেইসময়র ফের আক্রমণ চালায় এবিভিপির গুন্ডারা। অভিযোগ ঐশীর। তিনি আরও বলেন. রবিবার সকালেও কয়েকজন ছাত্রের ওপর হামলা চালানো হয়। এবিভিপির সদস্যরাই হামলা চালায় বলে অভিযোগ ঐশীর।

ঐশীর বোনও তাঁর সঙ্গে গতকালই দেখা করতে ক্যাম্পাসে যায়। হামলাকারীরা যখন আক্রমণ চালায় সেই হামলার মধ্যে পড়ে যায় ঐশীর বোনও। তবে কোনওরকমে পালিয়ে বাঁচে তাঁর বোন। এদিকে মুখোশধারী গুণ্ডাদের টার্গেট ছিল ঐশী। প্রথমেই লোহার রডের বাড়ি মারে তাঁর মাথায়। সেইসময় তিনি প্রতিবাদ করে যাচ্ছিলেন বলে জানান ছাত্রনেত্রী।

সংগঠতি এই সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সরব হওয়ার অঙ্গীকার নিয়েছে জেএনইউ। বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ও সংবিধান মেনে আন্দোলন যে চালিয়ে যাবে তাও স্পষ্ট করে দেন ঐশী। তাঁর বক্তব্য জেএনইউ আমাদের বাড়ি, এখান থেকে আমদের আরএসএস-এবিভিপি-বিজেপি কেউ উৎখাত করতে পারবে না। আগামী দিনে আন্দোলন আরও তীব্র হবে। সেকথাও সদর্পে ঘোষণা করলেন জেনএইউ ছাত্র সংসদের সভানেত্রী।