তৃণমূলকে মাত দিতে এখন থেকেই ঘুঁটি সাজাচ্ছে আম আদমি পার্টি!

64

নিজস্ব প্রতিনিধি: কংগ্রেসকে হঠিয়ে দিল্লি বিজয় হয়েছিল বছর দশেক আগেই। সোনিয়া গান্ধির দলকে মাত দিয়ে দখল হয়েছে পঞ্চ নদের দেশ পঞ্জাবও। এবার আম আদমি পার্টির শীর্ষ নেতৃত্বের শ্যেনদৃষ্টি বাংলায়।২০২৬ বাংলায় ফের বিধানসভা নির্বাচন। তার আগেই ‘গুঁড়ি মেরে আসছে সে…

খড়্গপুর আইআইটির প্রাক্তনী অরবিন্দ কেজরিওয়াল যখন আপ গঠন করেন, তখনই বাংলায়ও শুরু হয়ে যায় আপের কাজকর্ম। গত কয়েক বছর ধরে ঢিমেতালে চলতে থাকে সংগঠনের কাজকর্মও। তবে আপের পঞ্জাব জয়ের পর বাড়তি অক্সিজেন পেয়ে যায় কেজিরওয়ালের দল। তার পরেই জোর কদমে শুরু হয়েছে দলের কাজকর্ম। রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় মিসড কল দিয়ে চলছে সদস্য সংগ্রহ অভিযান। এতদিন মধ্য কলকাতার এন্টালি বাজারের কাছে দেব লেনে একটি অফিস ভাড়া নিয়ে কাজকর্ম চলছিল দলের। তবে এখন যেহেতু সংগঠন বাড়ছে, তাই মধ্য কলকাতায় বড় অফিস ভাড়া নিতে চাইছেন আপ নেতৃত্ব। মধ্য কলকাতায় অফিস নেওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ হাওড়া ও শিয়ালদহ স্টেশন থেকে যাতে সহজে দলীয় কর্মী-সমর্থকরা আসতে পারেন দলীয় কার্যালয়ে। মধ্য কলকাতায় মেট্রোরেলের যোগাযোগ ব্যবস্থাও বেশ ভালো। তাই মধ্য কলকাতায়ই খোঁজা হচ্ছে অফিস।

তবে এ ব্যাপারে এখনই মুখ খুলতে রাজি নন এ রাজ্যের আপ নেতৃত্ব। দিল্লির নির্দেশ, আপাতত কাজকর্ম হবে গোপনে। উপযুক্ত সময় এলে মুখ খুলবেন দলীয় নেতৃত্ব। তখনই প্রকাশ্যে আসবে সব।

আগামী ছ মাসের মধ্যে রাজ্যের প্রতিটি ব্লকে সংগঠন বিস্তারের লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। সেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হলেও শুরু হয়ে যাবে পঞ্চায়েত ভোটে প্রার্থী দেওয়ার প্রস্তুতি। আগামী বছর রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোট। ওই ভোটে প্রার্থী দিতে চাইছে দল। প্রথমে লোকসভা ও তার দু বছর পরের বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের সব আসনে প্রার্থী দিতে চাইছেন আপ নেতৃত্ব। দলীয় নেতৃত্বের দাবি, দুর্নীতির বিরুদ্ধে গোটা দেশে লড়াই চালাচ্ছি। মানুষ চাইলে বাংলায়ও জিতবে আপ।

একুশের ভোটে বিপুল জনাদেশ নিয়ে রাজ্যের কুর্সিতে ফের এসেছে তৃণমূল। দলের অনেকের গায়েই লেগেছে দুর্নীতির কালি। এমতাবস্থায় বাংলা থেকে দুর্নীতি ঝেঁটিয়ে বিদায় করতে এখন থেকেই আস্তিন গোটাচ্ছে কেজরিওয়ালের দল।