Aryan Drug Case : আরিয়ানের সঙ্গে সেলফি! ‘স্বঘোষিত’ প্রাইভেট ডিটেকটিভকে খুঁজছে পুলিশ

13
এনসিবির স্বতন্ত্র সাক্ষী গোসাভি হোটেল ম্যানেজমেন্ট এর চাকরির নাম দিয়ে প্রতারণা করেছেন

মহানগর ডেস্ক : মাদককান্ডে গ্রেফতার হওয়ার পর এনসিবি হেফাজতে শাহরুখপুত্র আরিয়ানের সঙ্গে সেলফি তুলে বিপাকে পড়েন কিরণ গোসাভি। নিজের পরিচয় দেন প্রাইভেট গোয়েন্দা হিসেবে।যদিও এটা ‘স্বঘোষিত’। গত ২ অক্টোবর আরিয়ানকে আটক করার পর তাঁকে এনসিবি হেফাজতে আনা হয় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সেখানেই গোসাভি আরিয়ানের সঙ্গে একটি সেলফি তুলে পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। যাকে ঘিরে তৈরি হয় চরম বিতর্ক।

বৃহস্পতিবার পুনে পুলিশ কমিশনার অমিতাভ গুপ্ত, কিরণ গোস্বামীর বিরুদ্ধে রুল জারি করেছেন। যাতে কোনোভাবেই দেশ ছেড়ে পালাতে না পারে কিরণ। প্রসঙ্গত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা এনসিপি মুখপাত্র নবাব মালিক দাবি করেন গোসাভি ও মনিশ ভানুশালি নামের ওই দুই ব্যক্তি যুব মোর্চাকে ঐদিন এনসিভি আধিকারিকের সঙ্গে দেখা যায়।

যদিও এনসিভি দাবি, গোসাভি একমাত্র স্বতন্ত্র সাক্ষী ওই দিনের প্রমোদতরীকাণ্ডে। তিনি নাকি মাদক নিতে দেখেছেন। ২০১৮ সালে প্রতারণা মামলায় অভিযুক্ত হচ্ছেন কিরণ গোসাভি। যে আরিয়ানের সঙ্গে সেলফি তুলেছেন।

তার ২০১৮ সালে ২৯ মে এফআইআর দায়ের করেছেন চিন্ময় দেশমুখ। এনসিবির স্বতন্ত্র সাক্ষী গোসাভি হোটেল ম্যানেজমেন্ট এর চাকরির নাম দিয়ে প্রতারণা করেছেন দেশমুখের সঙ্গে। মালয়েশিয়ায় চাকরি দেওয়ার নামে দেশমুখের কাছ থেকে নিজের একাউন্টে নিয়েছিলেন লক্ষাধিক টাকা। আদতে দেশমুখকে কোনও চাকরি দেননি তিনি।এমনকি টাকাও ফেরত দেননি এই ‘স্বঘোষিত প্রাইভেট গোয়েন্দা’। তাঁর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪১৯-৪২০ ধারায় জালিয়াতির মামলা রুজু করেছে পুলিশ। এছাড়া মুম্বাইয়ের আন্ধেরি থানায় ২০০৭ সালে ও থানের কাপুরবাউরী থানাতে ২০১৫-১৬ সালে দুটি প্রতারণা মামলা দায়ের রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।

Aryan Drug Case