সুস্থ থাকতে রোজ পান করুন ডাবের জল, উপকার হবে ত্বকেরও

154

 

ডেস্ক: রোজ যদি আপনি একটা করে ডাবের জল খান তাহলে আপনার শরীর সুস্থ থাকবে। ডাবের জল স্বাস্থ্যের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের ত্বক ও চুলের নানান সমস্যার সমাধান করে। ডাবের অনেক উপকারিতা আছে। ছোটো থেকে বড় সবার পছন্দের জিনিস ডাব। ডাব সাধারণত আমাদের দেহে জলের ভারসাম্য বজায় রাখতে সহায়তা করে। ডাবের জল কিন্তু নানান রোগের উপশম। ডাবের সাদা অংশ আমাদের শরীরের পক্ষে খুবই ভাল। এটিতে প্রচুর পরিমাণে সোডিয়াম ও পটাশিয়াম থাকে, যদি কোনও ব্যক্তির শরীরে এই জিনিসের অভাব থাকে তাহলে থাকে একটি করে ডাবের শ্বাস খাওয়ান। ডাব কিন্তু খুব সহজেই পাওয়া যায়। দামও খুব একটা বেশি নয়। ডাবে কিন্তু প্রচুর পরিমাণে ওয়ারেস থাকে। যা বাচ্চাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে খুব জরুরি। শুধু যে ডাবেই ওআরএস থাকে এমন কিন্তু নয়, অনেক খাবারে ওআরএস থাকে যেগুলি আমারা রীতিমতো খাই। ওআরএস কিন্তু ভাতের ফ্যানে, মুড়ি ভেজানো জলে ও ডালের ওপরে থাকা হালকা জলেও থাকে। এই ওআরএস থাকা ডাল কিন্তু একদম ছোটো বাচ্চাদের জন্য খুবই উপকারি সেই সঙ্গে বড়দের জন্যও বটে। শরীরে যদি সোডিয়াম ও পটাশিয়াম না থাকে তাহলে ডাইরিয়া হতে পারে। তাই নিয়মিত ডাবের জল খান। আমাদের সবার একটা ধারণা ডাবের জল শুধু গরমকালেই খাওয়া ভাল তা কিন্তু নয়, ডাব সব ঋতুতেই পাওয়া যায়। বিশেষ করে বাচ্চাদের প্রতিদিন একটা করে ডাব খাওয়ান। বাইরে কাজের থেকে এসে ফ্রিজের ঠাণ্ডা জল না খেয়ে বরং একটা ডাবের জল খান, উপকৃত দেবে।

এবার দেখে নেওয়া ডাবের কিছু বিউটি টিপস:
১)বাইরে থেকে খেঁটে এসে ক্লান্ত হয়ে যখন ঘরে প্রবেশ করি তখন আমাদের স্কিনের হালই খারাপ হয়ে যায়। তাই স্কিনকে সতেজ করে একটি ছোটো পাত্রে ১ চামচ গোলাপ জল(তৎক্ষণাৎ ফ্রেশ করে) ও ১ চামচ ডাবের জল(মেকআপ তুলতে সাহায্য করে) ও ১/২ গ্লিসারিন( মুখের আদ্রতা ফিরিয়ে আনে) ভাল করে মিশিয়ে নিন। এরপর একটি তুলোর সাহায্যে সেই মিশ্রণটিকে পুরো মুখে লাগিয়ে নিন।১০-১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। দেখবেন আপনি উপকার পাবেন।

২)আপনার যদি তৈলাক্ত ত্বক হয় তাহলে আপনি একটি বাটিতে অল্প বেসন(তেল দূর করবে) ও ডাবের জল(উজ্জল করবে) নিন, দুটিকে ভাল করে মেশান এবং তারপর তা মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট।

যদি আপনি ব্রণর সমস্যা ফেস করেন তাহলে একটু মুলতানি মাটি(কালো দাগ দূর করবে) ও ডাবের জল এবং ট্রি টি ওয়েল(ব্রণ ও সেই সঙ্গে ব্রণর দাগ দূর করবে) নিন।