‘বিজেপির সফল এজেন্ট হিসেবে ‘ ভারতরত্ন ‘ পাবেন ধনখড়’, জাগো বাংলার সম্পাদকীয়তে কড়া আক্রমণ জগদীপ ধনখড়কে

131

মহানগর ডেস্ক: রাজ্য রাজ্যপালের সংঘাত যেন শেষ হবারই নাম নেয় না। প্রতিদিনই সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে একাধিক ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায় জগদীপ ধনখড়কে। আবার রাজ্য সরকারকেও একাধিক বিল কিংবা যে কোনও প্রয়োজনীয় ইস্যুতে কটাক্ষ করতে দেখা যায় রাজ্য সরকারকে। তৃণমূলের মুখপাত্র ‘জাগো বাংলা’র সম্পাদকীয়তে কড়া ভাষায় আক্রমণ করতে দেখা গেল ধনখড়কে।

‘জাগো বাংলা’য় এদিন রাজ্যপালকে নিশানা করে বলা হয়েছে, ‘রাজ্যপাল পদে বসার জন্য কোনও যোগ্যতা লাগে না। শুধু দিল্লির গেরুয়া নেতাদের গোমস্তাগিরি করলেই সরকারি বিলাসব্যসনের সুযোগ পাওয়া যায়। এদের চাকরি, রিটায়ারমেন্ট সবটাই নির্ভর করে দিল্লির নেতাদের অনুগ্রহের উপর। সরকারের দেওয়া বিলাসব্যসনের সুযোগ হাতছাড়া করতে চান না বলেই জগদীপ ধনকড়ের মতো লোকেরা দিল্লির গোমস্তাগিরি করেন। রাজ্যপালের সাংবিধানিক পদটাকে মশকরার পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছেন তিনি। বিজেপির সফল এজেন্ট হিসাবে আগামী দিনে ‘ভারতরত্ন’ পুরস্কার পেতে পারেন ধনকড়। জনগণের বিপুল সমর্থন নিয়ে জিতে আসা সরকারকে দিনের পর দিন মনোনীত এক ব্যক্তি আক্রমণ করে চলেছেন।’

মূলত চাঁচাছোলা ভাষায় রাজ্যপালকে কটাক্ষ করা হয়েছে তৃণমূলের মুখপত্রে। মূলত রাজ্যপালের আচরণবিধির বারংবার বিরোধিতা করতে দেখা গেছে রাজ্য সরকারকে। ‘সরকার বিরোধী কার্যকলাপ’ এমনকি ‘বিজেপির পোশা দালাল’ নামেও সংবর্ধনা লাভ করেছেন রাজ্যপাল।

বর্তমানে রাজ্যে-রাজ্যপালের নতুন সংঘাতের কারণ হল বাজেট পেশের অধিবেশনে ধনখড়ের আপত্তি। আর্থিক মঞ্জুরি সংক্রান্ত রাজ্যের ফাইল ফেরত পাঠিয়ে দিয়েছেন তিনি। তারপরই আবারও নতুন করে শুরু হয়েছে দ্বন্দ্ব। যেখানে বিজেপির এজেন্ট হওয়ার জন্য ‘ভারতরত্ন পুরস্কার’ দেওয়া হবে বলেও রাজ্যপালকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেছে তৃণমূলের এই মুখপাত্র।