‘অপারেশন সূর্যোদয়ের’ ১৪ তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে শহিদবেদিতে মাল্যদান শুভেন্দুর, মনে করালেন বাম জমানার ‘স্বৈরাচার’

8

মহানগর ডেস্ক: আজ ১০ই নভেম্বর। নন্দীগ্রামে সিপিএম এর মদতপুষ্ট অপারেশন সূর্যোদয়ের ১৪তম বর্ষপূর্তি। এই ঐতিহাসিক দিনটিকে গত দেড় দশক ধরে নিষ্ঠাভরে স্মরণ করে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। তবে এই বছরটা ব্যতিক্রম।

বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল ছাড়েন নন্দীগ্রাম আন্দোলনের অন্যতম নায়ক শুভেন্দু অধিকারী। তিনি এখন বিজেপি বিধায়ক ও রাজ্যের বিরোধী দলনেতা। তাই নন্দীগ্রাম আন্দোলনের উপর কার অধিকার বেশি-তা নিয়ে শুরু হয়ে গেছে শুভেন্দু-তৃণমূল বাকযুদ্ধ। 

এদিন এক টুইট বার্তার মাধ্যমে নন্দীগ্রামের শহিদদের স্মরণ করেছেন শুভেন্দু। তিনি লিখেছেন, “রক্তক্ষয়ী অপারেশন সূর্যোদয়ের ১৪তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে ও ভূমি উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটির শহিদদের প্রতি সম্মান জানাতে গঙ্গাজল ছিটিয়ে শহিদবেদি পবিত্র করলাম ও ফুল মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানালাম। আজকের এই দিনে নতমস্তক হয়ে শহিদদের স্মরণ করি।”

যদিও কটাক্ষ ভেসে এসেছে তৃণমূল শিবির থেকে। তেখালীর এক সভা থেকে তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ প্রশ্ন করেন,  “তুমি (পড়ুন শুভেন্দু) তো এত দিন হিন্দু হিন্দু করেছ। এত দিন মুসলমানদের জেহাদি বলেছ। তুমি যে শহিদবেদিতে মালা দেবে সেখানে তো মুসলমানেরও রক্ত আছে। কোন লজ্জায় তুমি এখানে মালা দিতে আসবে?”

প্রসঙ্গত, ২০০৭-এর ১০ নভেম্বর নন্দীগ্রাম পুনর্দখল করে সিপিএম। সিপিএমের ভাষায়: ‘অপারেশন সূর্যোদয়’। ১৩ নভেম্বর মহাকরণে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য সেই ঐতিহাসিক উক্তি করেছিলেন, “দে হ্যাভ বিন পেড ব্যাক বাই দেয়ার ওন কয়েন।”

Also Read:

Rhea Chakraborty : বছর ঘুরে ফেরত পেলেন ফোন- ল্যাপটপ, এনসিবির হেফাজত থেকে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের দায়িত্ব ফিরে পেলেন রিয়া

শুভেন্দুর বিরুদ্ধে মুখ খোলার জের! জেলা সভাপতির পদ খোয়ালেন হাওড়ার বিজেপি নেতা

Sugar Adulteration : চিনিতে ইউরিয়া! বুঝবেন কী ভাবে রইল টিপস