BJP: মুখ্যমন্ত্রীর ভাষণ চলাকালীন বিধানসভা থেকে ওয়াকআউট বিজেপির

62
মুখ্যমন্ত্রীর ভাষণ চলাকালীন বিধানসভা থেকে ওয়াকআউট বিজেপির

মহানগর ডেস্ক: সোমবার বিধানসভায় (Legislative Assembly) মুখ্যমন্ত্রীর ভাষণ চলাকালীন ওয়াকআউট বিজেপির (BJP)। এদিন আচমকাই ‘ঘুষখোর সরকার’ স্লোগান দিতে দিতে গেরুয়া শিবিরের বিধায়কদের বিধানসভা থেকে বেরিয়ে আসতে দেখা যায়। তারপরই পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্বে ডাক দেওয়া মিছিলে যোগ দেন তাঁরা। সূত্র অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গ দিবস উপলক্ষে মিছিলের ডাক দিয়েছে বিজেপি। যেখানে শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari) থেকে শুরু করে উপস্থিত রয়েছেন অন্যান্য বিধায়করা। জানা গিয়েছে, এই মিছিল শেষ হবে রেড রোডে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তির পাদদেশে।

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গেরুয়া শিবিরের দিকে তোপ দেগে বলেন, ‘অগ্নিপথ প্রকল্প’ সেনার চাকরিই নয়। গোটাটাই কেন্দ্রের মস্তিষ্কপ্রসূত একটি প্রকল্প। তাঁর মতে, “২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনের আগে ক্যাডার তৈরীর প্রচেষ্টা করছে বিজেপি”। তাঁর দাবি, এই প্রকল্প দেশের সেনা বাহিনীকে অপমান করছে। সোমবার রাজ্য বিধানসভায় একাধিক ইস্যুতে কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার মাঝখানে প্ল্যাকার্ড হাতে ‘ঘুষখোর সরকার’ স্লোগান দিতে দিতে বিধানসভা থেকে বেরিয়ে এসেছেন বিজেপি বিধায়করা।

মুখ্যমন্ত্রী রাজ্য বিধানসভায় অগ্নিপথ প্রকল্প নিয়ে বলেন, চার বছরের যে চাকরি তা সেনার চাকরি হতে পারে না। অগ্নিবীরদের ভবিষ্যৎ নিয়ে বারবার প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে মোদি নেতৃত্বাধীন সরকারকে। দেশজুড়ে আন্দোলন জারি রয়েছে। এই মর্মে আজ, ২০ জুন গোটা দেশে পালিত হচ্ছে ভারত বনধ। তার মাঝেই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘চার বছর পর চাকরি চলে গেলে, কী হবে? তা কেউ জানে না। অথচ সবাই বন্দুক চালানোর লাইসেন্স পেয়ে গিয়েছে। সারা দেশে আগুন নিয়ে এইভাবে খেলা হচ্ছে’।

সেইসঙ্গে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে তিনি বলেন, ১ লক্ষ চাকরি হয়ে থাকলে একশোটা ভুল অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু সেই ভুল সংশোধনের সুযোগ করে দিতে হবে। পাশাপাশি শুভেন্দু অধিকারীকে ‘দাদামণি’ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। তাঁর বক্তব্য, ‘দাদামণিরা ১৭ হাজার চাকরি চলে যাবে বলে দাবি করছেন। সেই মানুষগুলোর কী হবে? যাদের তিনি নিজে চাকরি দিয়েছিলেন’।