বাঙালির রক্তে বাংলা দখল করতে চাইছে বিজেপি, কেতুগ্রামে অভিষেক

9
kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাঙালির রক্তে বাংলা দখল করতে চাইছে বিজেপি। আজ, সোমবার পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামের সভায় এই ভাষাতেই গেরুয়া শিবিরকে আক্রমণ শানালেন তৃণমূল নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শীতলকুচিকাণ্ডে যে দোষীরা ছাড়া পাবে না, এদিন তাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন তৃণমূলের এই যুব নেতা।

চতুর্থ দফার ভোটে ব্যাপক অশান্তি হয় কোচবিহারের শীতলকুচিতে। নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ১২৬ নম্বর বুথ এলাকায় নিহত হন চারজন। বাহিনীর দাবি, আত্মরক্ষার্থে গুলি চালানো হয়েছে। পুলিশের বিশেষ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবেও এই মর্মে রিপোর্ট দিয়েছেন। যদিও তৃণমূলের অভিযোগ, কোনও প্ররোচনা ছাড়াই নিরীহ ভোটারদের ওপর গুলি চালানো হয়েছে। শীতলকুচিতে গণহত্যা হয়েছে বলেও দাবি করেন তৃণমূল সুপ্রিমো। এদিন কেতুগ্রামের সভায় শীতলকুচির সেদিনের ঘটনার জের টেনে অভিষেক বলেন, বাঙালির রক্তে বাংলা দখল করতে চাইছে বিজেপি। বাংলার কিচ্ছু জানে না। তিনি বলেন, কার ইন্ধনে গুলি চলেছে, তদন্ত হবে। দোষীরা ছাড়া পাবে না বলেও সাফ জানিয়ে দেন এই যুব নেতা।

রাজ্যে করোনা পরিস্থিতির অবনতির জন্য বিজেপিকেই কাঠগড়ায় তোলেন অভিষেক। বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে তৃণমূল বাকি তিন দফা নির্বাচন এক দফায় করাতে চেয়েছিল। বিজেপি এতে রাজি হয়নি। তাই দফা কমানো হয়নি। কারণ দফা কমালে বিজেপি নেতাদের ডেইলি প্যাসেঞ্জারি বন্ধ হয়ে যাবে। ভুয়ো প্রচার বন্ধ হয়ে যাবে। এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও এক হাত নেন অভিষেক। বলেন, করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা কীভাবে করা যায়, তা না ভেবে ডেইলি প্যাসেঞ্জারি করছেন প্রধানমন্ত্রী। অভিষেক বলেন, সাড়ে আট হাজার কোটি টাকার বিমানে চড়ে ভোটের প্রচারে আসছেন প্রধানমন্ত্রী। সাধারণ মানুষের টাকায় এসব ফুর্তি হচ্ছে। এই অর্থে অনেক হাসপাতাল হতে পারত! তৃণমূল ক্ষমতায় এলে কী কী উন্নয়নমূলক কাজকর্ম করবে, এদিন সেই আশ্বাসও দেন অভিষেক।