Birds of Paradise: স্বর্গের ফুল এবার পৃথিবীতে, ‘বার্ডস অফ প্যারাডাইস’

59

মহানগর ডেস্ক: পৃথিবীতে খোঁজ পাওয়া গেল স্বর্গ সুন্দরী চোখ ধাঁধানো ফুলের, তাকিয়ে থাকলে মনে হবে যেন বাগানে লেগেছে ফাগুনের নেশা। এমন মোহনীয় রঙের বৈচিত্র ময় ফুলের খোঁজ পাওয়া গেল দক্ষিণ আফ্রিকায়। আর এই মায়াময়ী রঙের কারণে ফুলেরও নাম রাখা হয়–‘বার্ডস অফ প্যারাডাইস’! অনেকে বলছেন এটি স্বর্গের ফুল!

তথ্য বলছে, পৃথিবীতে থাকা সুন্দর ফুল গুলোর মধ্যে বার্ডস অফ প্যারাডাইস ফুল সেরা। এর বৈচিত্রপূর্ণ বাহারি গড়ন ও আকর্ষণীয় রং বাকি ফুলকে সত্যিই হার মানায়। গোটা গাছটাই যেন সৌন্দর্যতার প্রতীক। কলাগাছ গোত্রীয় এই গাছটি ছোট আকৃতির (০৬ থেকে ১০ ফুট), হালকা ঝোপের মত হয়। লম্বা ডাটার উপরে নীলাভ সবুজ পাতায় ভরা পাতার মাঝ বরাবর লাল রেখা চিরসবুজ শরীর। তাই এই ফুল ও গাছ বিশ্ব ব্যাপী পরিচিতি পেয়েছে।

উল্লেখ্য পৃথিবীর অনেক দেশে এই ফুল চাষ করা হলেও এর জন্ম ভিটে দক্ষিণ আফ্রিকায়। প্রতি বছর কয়েক লাখ বার্ডস অফ প্যারাডাইস পৃথিবী জুড়ে বিক্রি হয়ে থাকে। ১৭৭৩ সালে রয়্যাল গার্ডেনের ডিরেক্টর স্যার জোসেফ ব্যাঙ্ক (Sir Joshep Banks) এই ফুলকে প্রথম বিশ্ববাসীর কাছে পরিচয় করিয়ে দেন। ইংল্যান্ডের রাজা তৃতীয় জর্জের স্ত্রী চারলট (Charlotte) এর সম্মান দেখাতে ফুলটির বৈজ্ঞানিক নামকরণ করা হয় স্ট্রেলিটজিয়া রেজিন (Strelitzia reginae)। রাণী Charlotte ছিলেন ইংল্যান্ডের Mecklenburg-Strelitz অঞ্চলের ডাচেস। তাই বৈজ্ঞানিক নামের প্রথম অংশ নেওয়া হয়েছে রাণীর প্রথম জীবনের বাসস্থানের নাম থেকে নেওয়া হয়েছে, আর রেজিন (reginae) শব্দের অর্থ ‘অফ দ্য কুইন'(of the Queen)।

কোন পরিবেশে এবং কোন সময় ফোটে এই ফুল?

এই ফুল ফোটা শুরু হয় সেপ্টেম্বর থেকে থাকে মে মাস পর্যন্ত। এই ফুল স্থায়ী হয় মাত্র এক সপ্তাহ। আলো-ছায়া দু’জায়গাতেই জন্মায়। তবে, রোদে ফুল বেশী ফুটে।

কি কি রঙের হয়?

বার্ডস অফ প্যারাডাইস ফুল লাল, হলুদ, নীল, কমলা, সাদাসহ বিভিন্ন রঙ্গের হয়ে থাকে। এই চমৎকার ফুলটি রাজকীয়তা, আভিজাত্য, সজীবতা, স্বাধীনতা, নেতৃত্ব, আস্থা ও বিশ্বস্ততার প্রতীক। পৃথিবীর অনেক স্থানে আস্থা ও বিশ্বস্ততার প্রতীক রূপে নবম বিবাহ বার্ষিকীতে বার্ডস অফ প্যারাডাইস ফুল উপহার হেওয়া হয়। এমনকি আমেরিকার লস এঞ্জেলস শহরের অফিসিয়াল ফুলের তকমা পেয়ে গেছে এই বার্ডস অফ প্যারাডাইস ফুল।