উত্তাল উত্তরপাড়া কলেজ চত্বর, তৃণমূল-এসএফআইয়ের সংঘর্ষ

28
SFI vs TMC
শান্তিপূর্ণ মিছিল থেকে উত্তাল পরিস্থিতি তৈরি হল উত্তর পাড়ায়।

মহানগর ডেস্ক: নির্বাচনের মুখেই সংঘর্ষ বাধল তৃণমূলের ছাত্র পরিষদের সঙ্গে এসএফআইয়ের সদস্যদের। বৃহস্পতিবার দুপুরে উত্তাল পরিস্থিতি তৈরি হয় উত্তরপাড়া কলেজের সামনে। অভিযোগ উঠেছে এসএফআইয়ের মিছিল চলাকালীন তাঁদের সদস্যদের বেধড়ক মারধর করেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সদস্যরা। এরপরই লাঠিসোটা নিয়ে চড়াও হয় এবং রাস্তায় ফেলে চুলের মুঠি ধরে মারধরের অভিযোগ ওঠে। দুই পক্ষই একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন। এর মধ্যে এসএফআইয়ের সমর্থকদের অভিযোগ, এদিন তারা ছাত্র সংসদ নির্বাচন ও হুগলিতে মেডিকেল কলেজ তৈরি সহ বিভিন্ন দাবি নিয়ে উত্তরপাড়া স্টেশন থেকে উত্তরপাড়া কলেজ স্ট্যান্ড পর্যন্ত মিছিল করা হয়। মিছিলের শেষে একটি সভা হওয়ার কথা ছিল। আর সেখান থেকেই শুরু হয় সংঘর্ষ।

এছাড়াও অভিযোগ করা হয়, সভায় পিছনের দিক থেকে আসা বেশকিছু এসএফআইয়ের সমর্থকদের তুলে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয়। আর এই ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙ্গুল তুলেছে বিরোধীপক্ষ। শাসক পক্ষের দাবি, এসএফআইয়ের সর্মথকরা কলেজে এসে ঝামেলা করে। কলেজে সেই সময় পরীক্ষা চলছিল। এর জেরেই বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়। দু’পক্ষেরই অভিযোগ লাঠি দিয়ে মারধর করা হয়। ঘটনাস্থলে পুলিশের উপস্থিতি থাকলেও তাঁদের ভূমিকা ছিল নিষ্ক্রিয়।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে এসএফআইয়ের এক সদস্য জানান, আমাদের কলেজের সামনে দিয়ে শান্তিপূর্ণ মিছিল নিয়ে শান্তিপূর্ণ সভা করা হয়। সেই সভার পিছনের দিকে কয়েক জনকে ধরে নিয়ে যায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ছেলেরা। কয়েকজন কলেজের সামনে বেধড়ক মারধর করা হয়। আমরা কথা বলতে গেলে আমাদের ওপর চড়াও হয়। প্রথমে ব্যাট দিয়ে মারা হয়। তার পর ইট দিয়ে, কাট দিয়ে মারা হয়। শাসক পক্ষের সদস্যরা জানান, আমাদের এক বন্ধুর পা থেঁতলে দিয়েছে। কারোর মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে। কাউকে মাটিতে ফেলে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে। ছাত্রছাত্রীরা শান্তিপূর্ণভাবে পরীক্ষা দিচ্ছিল। সেটা নষ্ট করাই ছিল তাদের উদ্দেশ্য।