Municipal Elections: ‘পুর নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্রয়োজন নেই’, বিজেপির উল্টো পথে হেঁটে দাবি বামেদের ‌

26

মহানগর ডেস্ক: শিয়রে বঙ্গের দ্বিতীয় দফার উপনির্বাচন। ৩০শে অক্টোবর ভোটগ্রহণ হবে রাজ্যের ৪ বিধানসভা কেন্দ্রে। ফলাফল ঘোষণা হবে ২রা নভেম্বর। নির্বাচনকে উপলক্ষ্য করে ৮০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার।

উপনির্বাচন শেষ হতেই পুরসভা নির্বাচনের তোড়জোড় শুরু হয়ে যাবে। ১১০টি পুরসভায় নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে কলকাতা পৌরসভাও। রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল ভারতীয় জনতা পার্টি পুর নির্বাচনেও কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি জানিয়েছে। তবে এই দাবির সঙ্গে যে বামেরা একমত নয় তা এদিন স্পষ্ট করে দিলেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী।

এদিন তিনি শীতলকুচি হত্যার প্রসঙ্গ টেনে আনেন। তিনি এদিন জানান, “শীতলকুচির ঘটনার পর রাজ্যের মানুষ আতঙ্কিত। তার প্রভাব পড়েছে ভোটবাক্সে। এক অংশের মানুষকে আতঙ্কিত করতেই পরিকল্পিতভাবে শীতলকুচির ঘটনা ঘটনো হয়েছিল। আগের পুরভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনী এলেও রাজ্য তাঁদের বসিয়ে রেখে ভোট করেছিল। ফলে সুষ্ঠুভাবে ভোট করা হবে কিনা তা আগে সরকারকে দেখতে হবে।”

প্রসঙ্গত, ডিসেম্বর মাসে পৌরসভা নির্বাচন হচ্ছে, এমনটা ধরে নিয়েই নিজেদের রাজনৈতিক অঙ্ক কষতে শুরু করেছে বামফ্রন্ট। কংগ্রেসের সঙ্গে এই নির্বাচনে তাঁদের ঠিক কী সমীকরণ দাঁড়ায় তাও দেখতে আগ্রহী রাজনৈতিক মহল।

Also Read:

Unhealthy Habits : অনিয়মিত জীবন যাপনই হতে পারে কোলন ক্যান্সারের কারণ

কলকাতা পুরসভাকে ‘ঠুঁটো জগন্নাথ’ উক্তি,বিপজ্জনক বাড়ি নিয়ে তৃণমূলকে দুষছেন শহরের বাড়িমালিকেরা

রাজ্যে পুরভোটের প্রস্তুতি শুরু, নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করতে সব আসনে প্রার্থী দিতে নারাজ বামেরা