একুশের প্রস্তুতিতে নড়ে বসছে আলিমুদ্দিন, খাদ্য ও কাজের দাবি শুরু হচ্ছে বৃহত্তর আন্দোলন

9
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ভোটের বাদ্যি বেজে গিয়েছে অনেকদিন আগেই। সেই লক্ষ্যে ইতিমধ্যে নিজের নিজের মত করে প্রচার শুরু করে দিয়েছে প্রায় প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দল। পিছিয়ে নেই বামেরাও। সূত্রের খবর, এই লক্ষ্যে রাজ্যে খাদ্য ও কাজের দাবিতে বৃহত্তর আন্দোলনের পথে নামতে চলেছে বামফ্রন্ট।

দলীয় সূত্রে খবর, রাজ্যে খাদ্য ও কাজের দাবিতে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য ইতিমধ্যেই তৈরি হচ্ছে বামফ্রন্ট। তার প্রাথমিক প্রস্তুতি হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করা হবে। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে জনগণের কাছে তথ্যসহ পৌঁছে দেওয়া হবে রাজ্যের বর্তমান অবস্থার হালহকিকত। এই গোটা বিষয়টি নেতৃত্ব দেবেন দলের রাজ্য সম্পাদক। দলের সর্বস্তরের কর্মীদের সঙ্গেই আপাতত ভার্চুয়াল মাধ্যমেই নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করবে শীর্ষ নেতৃত্ব। পার্টির স্বাধীন উদ্যোগ, বামপন্থীদের সঙ্গে যৌথ কর্মসূচি এবং রাজ্যে তৃণমূল-বিজেপি বিরোধী সমস্ত ধর্মনিরপেক্ষ শক্তিকে সমবেত করে তবেই আন্দোলনের শুরু হবে বলে জানা গিয়েছে।

সূত্রের খবর, নির্বাচনের প্রস্তুতির জন্য ইতিমধ্যেই দলীয় সর্বস্তরের নির্দেশ পাঠাতে শুরু করেছে সিপিএম। একইসঙ্গে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, পার্টিকে সাংগঠনিক ভাবে আরও সংহত করার কাজে গুরুত্ব দিতে। সেক্ষেত্রে বুথভিত্তিক সংগঠনকে প্রস্তুত করতে হবে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

অতিমারির সঙ্গে সুপার সাইক্লোন আমফান, এই জোড়া দুর্যোগ সামলাতে ব্যর্থ হয়েছে রাজ্য সরকার, অভিযোগ প্রথম থেকেই করে আসছিল বামেরা। সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বিজেপির ‘উপদ্রব’। বাম নেতাদের কথায়, বর্তমান সময়ের সুযোগ নিয়ে মেরুকরণের পথে হাঁটতে চাইছে বিজেপি। এই অবস্থা থেকে বাঁচতে মানুষ বামফ্রন্টকেই পুনরায় চাইছে বলে দাবি তাঁদের।

রাজ্য বাম নেতাদের দাবি, এই অবস্থায় পার্টির সাম্প্রতিক সময়ের কর্মসূচিতে উল্লেখযোগ্য সাড়া পাওয়া গিয়েছে। সর্বভারতীয় প্রতিবাদের অঙ্গ হিসেবে কর্মসূচিতে ভালো অংশের মানুষকে সমবেত করা গেছে। স্থানীয় স্তরে শাসক দলের দুর্নীতির বিরুদ্ধেও বিক্ষোভ কর্মসূচিতে ভালো সাড়া পাওয়া গেছে। তাই ‘প্রচারে নয়, কাজ দিয়ে মানুষের কাছে পৌঁছতে হবে’ এই মূলমন্ত্রকে মাথায় রেখেই, মানুষের জন্য লড়াই করেই এগোতে চাইছে বামফ্রন্ট।