অপরাধের শীর্ষে যোগীরাজ্য়, প্রতি দুঘন্টায় দায়ের ধর্ষণের রিপোর্ট! NCRB রিপোর্টে চাঞ্চল্য়কর তথ্য়

35
kolkata bengali news

Highlights

  • সবথেকে বেশি সংখ্যক অপরাধ হয় যোগীরাজ্য উত্তরপ্রদেশে
  • যেখানে প্রতি দু-ঘন্টায় দায়ের হয় একটি করে ধর্ষণের রিপোর্ট
  • প্রতি ৯০ মিনিটে অত্যাচারিত হয় একটি শিশু

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সবথেকে বেশি সংখ্যক অপরাধ হয় যোগীরাজ্য উত্তরপ্রদেশে৷ অপরাধের নিরিখে শীর্ষে রয়েছে এই রাজ্য৷ যেখানে প্রতি দু-ঘন্টায় দায়ের হয় একটি করে ধর্ষণের রিপোর্ট৷ এনসিআরবি অর্থাত্ ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস বুরোর প্রকাশিত রিপোর্টে উঠে এল এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য৷ শুধু তাই নয়, এই রাজ্যে প্রতি ৯০ মিনিটে অত্যাচারিত হয় একটি শিশু৷ বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এনসিআরবির এই রিপোর্টে অনুযায়ী, ২০১৮ সালে ৪৩২২টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে উত্তরপ্রদেশে৷ যার মধ্যে ১২টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে পরপর ১২ দিনে৷

এই রাজ্যে ৫৯,৪৪৫টি মহিলাদের অত্যাচারের ঘটনা রয়েছে৷ সেই নিরিখে মহিলাদের ওপর অত্যাচারের ১৬২ টি করে অভিযোগ রোজ দায়ের করা হয় থানায়৷ ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস বুরোর সমীক্ষার পর এই রিপোর্টে উঠে এসেছে আরও বেশ কিছু তথ্য৷ যেমন, ২০১৭ সালে উত্তরপ্রদেশে শিশুদের ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছিল ১৩৯টি৷ যা বেড়ে ২০১৮ সালে হয় ১৪৪টি৷ মহিলাদের ওপর হওয়া অত্যচারের তালিকায় ১৯টি শহরের মধ্যে সবচেয়ে উঁচুতে রয়েছে লখনউয়ের নাম৷ ২০১৮ সালে যেখানে প্রায় ২,৭৩৬টি মহিলা নির্যাতনের ঘটনা উঠে এসেছে৷

এছাড়াও এনসিআরবি তথ্য অনুযায়ী রয়েছে পণের দায়ে গৃহবধূকে মেরে ফেলার ঘটনাও৷ সেই সংখ্যাটা শুনলে আপনার চোখ উঠবে কপালে৷ ২০১৮ সালে পণ না দেওয়ায় প্রায় ২,৪৪৪ গৃহবধূকে খুন করেছে তার স্বামী বা শ্বশুর বাড়ির লোকেরা৷ যা ২০১৭ সালে ছিল এর তুলনায় আরও বেশি৷ ২০১৭ সালে ২,৫২৪ টি পণের জন্য খুনের ঘটনা ঘটেছিল উত্তরপ্রদেশে৷ ২০১৭ সালের তুলনায় এই রাজ্যে কয়েকগুন বেড়েছে বৃদ্ধদের ওপর হওয়া অত্যাচারও৷ এপ্রসঙ্গে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের এডিজি অসিম অরুণ জানিয়েছেন, বৃদ্ধদের সাহায্য করার জন্য ‘সভেরা’ নামে একটি হেল্পলাইন চালু করেছে পুলিশ৷ এই নম্বরে ফোন করে সমস্যার কথা জানালেই বাড়িতে হাজির হয়ে যাবে পুলিশ৷

এদিকে এনসিআরবির রিপোর্টে উঠে আসা এই চাঞ্চল্যকর তথ্যগুলিকে নস্যাত্ করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ৷ তাদের জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আগের থেকে প্রায় ৭ শতাংশ কমেছে ধর্ষণের ঘটনা৷ তবেই পুলিশ যতই মানতে রাজী না হোক অপরাধের শীর্ষে যে উত্তরপ্রদেশ রয়েছে গত কয়েকবছরে সেই ছবিটা স্পষ্ট হয়েছে গোটা দেশবাসীর কাছে৷