DA: সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতা মৌলিক অধিকার: কলকাতা হাইকোর্ট

77
DA: সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতা মৌলিক অধিকার: কলকাতা হাইকোর্ট

মহানগর ডেস্ক: দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে চলা লড়াইয়ে স্বস্তি। ২০১৬ সাল থেকে সরকারি কর্মচারীদের (State Government Employee) DA মামলায় আইনি লড়াইয়ে আজ রায় ঘোষণা হল। বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডনের ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার রায় ঘোষণা হয়েছে। রায় রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের পক্ষেই। আদালতের (Calcutta High Court) তরফে জানানো হয়েছে, ‘মহার্ঘভাতা আইনত অধিকার। মৌলিক অধিকার’।

পাশাপাশি আরও জানানো হয়েছে, ‘বকেয়া DA দিতে হবে ৩ মাসের মধ্যে। SAT যা রায় দিয়েছিল তা ৩ মাসের মধ্যে করতে হবে কার্যকর’। রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের দাবি ছিল কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের হারে তাদের দিতে হবে DA। সেই নিয়ে আজ হল রায় ঘোষণা। আদালতে ধাক্কা খেল রাজ্য। কেন্দ্রের হারে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের দিতে হবে মহার্ঘ ভাতা। মেটাতে হবে বকেয়া। মহার্ঘ ভাতার মামলায় আদালতের রায়ে স্বস্তি পেল সরকারি কর্মচারীরা।

২৬ জুলাই ২০১৯ সালে SAT-এর নির্দেশ বহাল রাখল কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। সুখের মুখ দেখল রাজ্যের সরকারি কর্মচারীরা। আদালতের তরফে জানানো হয়েছে, ‘রাজ্য সরকার এতদিন মুখ ফিরিয়ে রেখেছিল। কোনও ভাবেই সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘভাতা থেকে মুখ ফিরিয়ে রাখা যায় না। রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্য মহার্ঘ ভাতা তাদের অধিকার’। সরকারি কর্মচারীদের DA দেওয়ার ক্ষেত্রে ক্রমাগত অনীহা দেখিয়েছেন রাজ্য সরকার, দাবি কলকাতা হাইকোর্টের।

এই প্রসঙ্গে সুজন চক্রবর্তী জানিয়েছেন, কলকাতা হাইকোর্ট আজ DA নিয়ে যে রায় দিয়েছে, তা যথার্থ। তৃণমূল সরকার বারবার চেয়েছিল মহার্ঘ ভাতা কিভাবে বন্ধ করা যায়। রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের ডিএ কম দেওয়া, বকেয়া রেখে দেওয়া ইত্যাদি করে কয়েক লক্ষ কোটি টাকার সাশ্রয় করেছে রাজ্য সরকার।

আরও জানা গিয়েছে, ‘অল ইন্ডিয়া প্রাইস ইনডেক্স’ অনুযায়ী ডিএ পেতে বাধ্য সরকারি কর্মচারীরা। সাংবিধানিক অধিকার অনুযায়ী রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ডিএ দিতে হবে রাজ্য সরকারকে। তাই ‘অল ইন্ডিয়া কনজিউমার প্রাইস’ অনুযায়ী রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের তিন মাসের মধ্যে ডিএ দিতে হবে বলে জানাল হাইকোর্ট।

উল্লেখ্য, এর আগে দীর্ঘদিন ধরে SAT-এ আইনি লড়াই চলে কর্মচারীদের। সেখানে দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর SAT-এর রায় যায় কর্মচারীদের পক্ষে। এরপর সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করে রাজ্য সরকার। কিন্তু সেখানেও মুখ থুবড়ে পড়ল রাজ্য। আদালতের রায় গেল সরকারি কর্মচারীদের পক্ষেই।

 

Read More

Kolkata Civic Polls: ‘প্রত্যেক বুথে সিসিটিভি বসান’, রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের