Home Featured Patna: পরীক্ষায় পাশ করা সত্ত্বেও মেলেনি নিয়োগপত্র, বিক্ষোভ দেখাতেই বেধড়ক মারা হল চাকরিপ্রার্থীদের

Patna: পরীক্ষায় পাশ করা সত্ত্বেও মেলেনি নিয়োগপত্র, বিক্ষোভ দেখাতেই বেধড়ক মারা হল চাকরিপ্রার্থীদের

by Anamika Nandi

মহানগর ডেস্ক: শিক্ষকপদে নিয়োগে লাগছে অত্যাধিক সময়। প্রতিবাদে নামতেই শাস্তি হিসেবে বেধড়ক মারা হল চাকরিপ্রার্থীদের। মুহূর্তের মধ্যেই নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে গোটা ঘটনার ভিডিও। যেখানে দেখা গিয়েছে, জাতীয় পতাকা হাতে নিয়ে মাটিতে পড়ে রয়েছেন এক চাকরি প্রার্থী। লাঠি দিয়ে তাঁকে মারছেন এক ব্যক্তি। ঘটনাটি ঘটেছে পাটনায়।

এদিন চাকরিপ্রার্থীর এই দুর্দশা দেখে নীতীশ কুমারের সরকারের তীব্র নিন্দা করেছে বিজেপি। শিক্ষকপদে নিয়োগ করতে বেশি সময় নিচ্ছে বিহার সরকার। সেই কারণেই রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখানোর সিদ্ধান্ত নেন চাকরিপ্রার্থীরা। আর সেখানেই বিক্ষোভকারীদের থামাতে বিশাল সংখ্যায় পুলিশ বাহিনী পাঠানো হয়। ঘটনাস্থলে ব্যবহার করা হয়েছে জল কামান। পাশাপাশি নির্মমভাবে মারা হয়েছে বিক্ষোভকারীদের। মুহূর্তের মধ্যেই ভাইরাল হয়েছে সেই সময়ের ভিডিও। যা দেখে গা শিউরে উঠেছে নেটিজেনদের।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গিয়েছে একজন বিক্ষোভকারীকে বেধড়ক মারছেন এক ব্যক্তি। পরে জানা যায়, ওই ব্যক্তি পাটনার অ্যাডিশনাল জেলাশাসক কেকে সিং। তিনি যে চাকরিপ্রার্থীকে মারধর করছিলেন সেই বিক্ষোভকারীর হাতে ছিল একটি জাতীয় পতাকা। বারবার ওই বিক্ষোভকারী জেলা শাসককে থামতে বললেও, তিনি থামেন নি। পরে বিক্ষোভকারীর হাত থেকে পতাকা ছিনিয়ে নেয় পুলিশ। তাঁদের দাবি, পরীক্ষায় পাশ করা সত্ত্বেও তাঁদের নিয়োগপত্র দিচ্ছে না সরকার।

সম্প্রতি এনডিএ-র সঙ্গ ছেড়ে আরজেডির সঙ্গে মহাজোট সরকার গঠন করেছেন নীতীশ কুমার। সেই সরকারের নতুন উপমুখ্যমন্ত্রী তেজস্বী যাদব। তিনি বলেছিলেন, ক্ষমতায় এসেই যুব সমাজের জন্য চাকরির ব্যবস্থা করবেন তিনি। আর এই দিন চাকরিপ্রার্থীদের বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে নীতীশ কুমারকে এক হাত নিয়েছে বিজেপি। প্রসঙ্গে গেরুয়া শিবিরের আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্য বলেছেন, “নীতীশ কুমার কুড়ি লক্ষ চাকরি দেবেন বলেছিলেন। উল্টে তাঁর পুলিশ চাকরিপ্রার্থীদের লাঠি দিয়ে পেটাচ্ছে। জাতীয় পতাকার প্রতি নূন্যতম সম্মান দেখানো হয়নি। এটাই মহাজোটের সরকারের আসল চেহারা”। পাশাপাশি এই নিয়ে সরব হয়েছে কংগ্রেসও। হাত শিবির জানিয়েছে, “এই জেলা শাসকের বিরুদ্ধে দমননীতি গ্রহণ করার অভিযোগ রয়েছে। জাতীয় পতাকা হাতে নিয়ে একজন শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ করছিলেন। আর তিনি তাঁকে মারধর করেছেন। তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপ নিতে হবে”।

You may also like