করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জয়ী মুম্বইয়ের ধারাভি, বন্ধ করা হল কোভিড কেয়ার সেন্টার

6
news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা যখন দেশে ধীরে ধীরে ডালপালা বিস্তার করতে শুরু করেছে সেই মুহূর্তে সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছিল এই বস্তিটি। বিশ্বের অন্যতম বড় এই বস্তিটিকে হটস্পট হিসেবে কার্যত সিল করে দিয়েছিল মহারাষ্ট্র সরকার। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদল এসেছে পরিস্থিতিতে। একদা হটস্পট এই ধারাভি এখন ধীরে ধীরে নিরাপদ হয়ে উঠছে মানুষের কাছে। কর্মা আক্রান্তের সংখ্যা এখানে ক্রমশ নিম্নগামী হওয়ায় বন্ধ করে দেওয়া হল দুটি কোভিড কেয়ার সেন্টার।

সরকারি ভাবে জানানো হয়েছে, ঢাবিতে করণা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ নিম্নগামী হওয়ার যেরে দুটি কোভিদ কেয়ার সেন্টার বন্ধ করা হয়েছে। যার একটি ৭৫০ বেড বিশিষ্ট ধারাভি মিউনিসিপালিটি স্কুল। আপৎকালীন ভাবে যেটিকে কোভিড হাসপাতাল বানানো হয়েছিল। এবং অন্যটি ১৫০০ আসনবিশিষ্ট রাজীব গান্ধী স্পোর্টস কমপ্লেক্স। দাবি করা হয়েছে এই দুটি জায়গায় করোনা আক্রান্ত রোগী সুস্থ হতে হতে বর্তমানে শূন্যে নেমে এসেছে। ফলে বন্ধ করে দিতে হয়েছে এই দুই কোভিদ সেন্টার। এক সরকারি আধিকারিকের কথায় এই মুহূর্তে সরকার যদি চায় তাহলে পুনরায় চালু করতে পারে এখানকার স্কুল। তথ্য অনুযায়ী একটা সময় প্রতিদিন একশোর বেশি আক্রান্তের সংখ্যা দেখিয়ে চলা ধারাভি বস্তি বর্তমানে ৪ ও ৫-এ আটকে গেছে। দ্বিগুণ হওয়ার হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০২ দিন। ধারাভির সাফল্য গোটা রাজ্য তথা দেশকে পথ দেখাতে পারে এমনটা আশা করা হচ্ছে। কিন্তু এই সাফল্যের পিছনে মূল কারণ হিসেবে বলা হয়েছে এখানে প্রচুর পরিমাণে টেস্ট করা হয়েছে তারপর তাদের সঠিক চিকিৎসা এবং সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষ গুলির উপর নজরদারি চালানো হয়েছে যাতে তারা দ্বিতীয়বার আক্রান্ত না হয়।

স্বাস্থ্যকর্মীদের দাবি ধারাভি কে করোনা মুক্ত করতে আমরা একটি মিশন চালু করেছিলাম যার নাম দেওয়া হয়েছিল ‘মিশন জিরো’। বর্তমান পরিস্থিতি স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেয় যে এই মিশন সফল হয়েছে। শুধু তাই নয় ধারা ভিড় এই মিশন জিরো লাগু করা হচ্ছে মুম্বাইয়ের একাধিক করোনা আক্রান্ত এলাকাগুলিতে। আশা করা হচ্ছে শীঘ্রই করোনা আমাকে জয় করে সুস্থ হয়ে উঠবে মুম্বাইয়ের বাকি এলাকাগুলি।