কাটমানি খাওয়ার সুযোগ ছিল না, তাই চাষিদের নাম পাঠাতে দেরি, রাজ্যকে তোপ দিলীপের

10
kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যে ভোটের প্রচারে এসে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন, এখানে বিজেপি ক্ষমতায় এলে কৃষকদের বকেয়া টাকা সব মিটিয়ে দেওয়া হবে। হলদিয়ার সেই সভায় তিনি বলেছিলেন, বকেয়া তিন মাসের ৬হাজার টাকা করে মোট ১৮ হাজার টাকা দিয়ে দেওয়া হবে। কৃষকের সেই টাকা পাওয়া থেকে রাজ্য প্রশাসন বঞ্চিত করে রেখেছে বলে অভিযোগ করেছিলেন নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেছিলেন, বাংলার সরকার কৃষকদের নামের তালিকা কেন্দ্রের কাছে পাঠায়নি। তাই কেন্দ্রের কিসান সম্মান নিধির টাকা দেওয়া যাচ্ছে না।

কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা পাওয়া দিয়ে নবান্ন ও দিল্লির টানাপোড়েন চলতে থাকে। সেই টানাপোড়েন শেষে আজ থেকে কৃষকরা বকেয়া টাকা পেতে শুরু করেছেন। প্রথম কিস্তিতে ২হাজার টাকা করে অ্যাকাউন্টে ঢুকে গিয়েছে। কয়েকদিন আগে রাজ্যের কৃষকরা যাতে কেন্দ্রের টাকা পান সে ব্যাপারটি নিশ্চিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতি তাঁকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই মোতাবেক তিনি একটি চিঠি লিখেছিলেন প্রধানমন্ত্রীকে। তারপর দিল্লি থেকে পদক্ষেপ করা হয়েছে রাজ্যের কৃষকদের অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়ার ব্যাপারে। এই বিষয়টি নিয়ে রাজ্যের কৃষকদের চিঠি লিখে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, রাজ্য প্রশাসন তৎপরতা দেখানোয় কেন্দ্র কৃষকদের বকেয়া টাকা দিতে বাধ্য হয়েছে।

​কেন্দ্র ও রাজ্যের এই টানাপোড়েন শেষে অবশেষে রাজ্যের কৃষকরা টাকা পেতে শুরু করেছেন। এই বিষয়টা নিয়ে আসরে নেমেছে রাজ্য বিজেপি। সাংবাদিক সম্মেলন করে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, এতদিন কৃষকদের নামের তালিকা পাঠানো হয়নি। কারণ কৃষকদের অ্যাকাউন্টে সরাসরি দিল্লি থেকে টাকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেই টাকা থেকে কাটমানি খাওয়া যাবে না বলে নাম পাঠাতে এত দেরি করে রাজ্য সরকার।

​অন্যদিকে, এই বিষয়টি নিয়ে বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেন, আমরা কৃষকদের পাশে দাঁড়াব। সবাই যাতে টাকা পান তার জন্য বিধানসভার ভেতরে ও বাইরে আন্দোলন চলবে আমাদের। মুখ্যমন্ত্রী কৃষকদের যে চিঠি দিয়েছেন, তা খুবই নিন্দনীয়। মিথ্যে বলছেন মুখ্যমন্ত্রী। কেন্দ্রীয় সরকার এই টাকা আগেই দিতে চেয়েছিল। রাজ্য সরকার কৃষকদের নামের তালিকা পাঠায়নি বলে এই বিলম্ব।