এই গরমে দেদার স্ট্র দিয়ে খাচ্ছেন ঠান্ডা পানীয়! সাবধান পড়তে পারেন মারাত্মক সমস্যার মুখে

88

মহানগর ডেস্ক : মাথার ওপর গনগন করছে রোদ্দুর। দু’পা হাঁটলেই মনে হচ্ছে ঠান্ডা কিছু খেয়ে নিই। আর বাইরে বেরোনো মাত্রই চুমুক দিচ্ছেন ঠান্ডা ডাবের জল কিংবা রঙিন শরবতে। মাঝে মাঝে যদিও কোল্ড কফি কিংবা কোলড্রিংস চলছে টুকটাক। আর এই সব কিছু খেতেই ব্যবহার করছেন স্ট্র। ভাবছেন অনেক বেশি সর্তকতা অবলম্বন করছেন। কারণ পানীয়র বোতলে সরাসরি মুখ লাগাতে হচ্ছে না আবার লিপস্টিকও উঠছে না। অথচ ধীরে ধীরে অনুভব করছেন শরবতের ঠান্ডার স্বাদ। কিন্তু আদৌ কি স্বাস্থ্যকর এই পদ্ধতি? না জেনে নিজের কোনও ক্ষতি করে ফেলছেন না তো?

 

চিকিৎসকেরা জানাচ্ছেন স্ট্র ব্যবহার করা মোটেই স্বাস্থ্যকর নয়। ঘন ঘন স্ট্র ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন তাঁরা। তাঁদের মতে,

 

১) অতিরিক্ত স্ট্র ব্যবহার করলে মোটা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কারন প্লাস্টিকের স্ট্র গুলিতে পেট্রোলিয়াম জাতীয় উপাদান থাকে। যা শরীরে মেদের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। যার ফলে ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

 

২) স্ট্র দিয়ে কোনও কিছু পান করা উচিত নয়। পেটে অতিরিক্ত হাওয়া ঢুকে যায় এর ফলে। যে কারণে গ্যাস অম্বলের মতো সমস্যা হয়।

 

৩) যেকোনও পানীয় চুমুক দিয়ে খাওয়ার সময় দাঁত এবং মুখের মধ্যে অবস্থানরত ব্যাকটেরিয়া পরিষ্কার হয়ে যায়। স্ট্র দিয়ে খেলে সেই কাজ হয়না। অতিরিক্ত স্ট্র দিয়ে মিষ্টি জাতীয় পানীয় গ্রহণ করলে মুখের ভেতরে চিনি জমতে থাকে। যার থেকে শুরু হয় দাঁতের ক্ষয়। অতিরিক্ত শর্করা মুখের চারপাশে জমে থাকলে দেখা দিতে পারে সমস্যা।

 

৪) এছাড়া অতিরিক্ত স্ট্র ব্যবহার করলে মুখে তাড়াতাড়ি বলিরেখা দেখা যায়। কারণ স্ট্র করে যখন কোনও পানীয় আমরা মুখের ভেতর নিই তখন মুখের পেশিতে চাপ পড়ে। নিয়মিত স্ট্র ব্যবহার করলে মুখে বয়সের ছাপ পড়ে যায়।

 

৫) গরম খাবার তো বটেই ঠান্ডা খাবারের সংস্পর্শে এলেও স্ট্র’র মধ্যে থাকা অতিক্ষুদ্র প্লাস্টিকের কনা মিশে যায় সেই পানীয়র সঙ্গে। তা দ্রুত রক্ত প্রবাহে মিশে যায় এবং পৌঁছে যায় যকৃতে। এর থেকে হতে পারে গুরুতর অসুখ।