Home Entertainment ‘ধরো তুমি মন্ত্রী হলে…’ দাদাগিরির মঞ্চে জয়জিতের প্রশ্ন যা বললেন সৌরভ 

‘ধরো তুমি মন্ত্রী হলে…’ দাদাগিরির মঞ্চে জয়জিতের প্রশ্ন যা বললেন সৌরভ 

by Mahanagar Desk
52 views

মহানগর ডেস্ক: গতকাল অর্থাৎ রবিবারের দাদাগিরির মঞ্চ আলো করে ছিলেন তারকাদের হাট।এদিন ‘পারিয়া’ ছবির প্রমশনে এসেছিলেন তথাগত মুখোপাধ্যায় ও বিক্রম চট্টোপাধ্যায়। এছাড়াও ছিলেন অভিনয় জগতের বিখ্যাত মুখ জয়জিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় সহ সম্পূর্ণা লাহিড়ি, পূজা বন্দ্যোপাধ্যায়রা।

খেলার ফাঁকেই সৌরভকে গুগলির পাল্টা রাজনীতি ভরা গুগলি প্রশ্ন করে বসলেন জয়জিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন খেলার মাঝেই জয়জিৎ বললেন, ‘আমার দুটো প্রশ্ন আছে। ধরো তুমি মন্ত্রী হলে…’ থামিয়ে দিয়ে সৌরভ বলে ওঠেন, ‘হবো না কেনওদিন’। তাতে জয়জিৎ বললেন, ‘আরে সে তো জানি। আমি জানি তুমি কীভাবে এসব ট্যাকেল করো। তাও ধরো তুমি হলে। ক্রীড়া মন্ত্রী ছাড়া কোন দপ্তরের মন্ত্রী হওয়ার শখ তোমার?’ এবার একটু ভেবে নিয়েই বাংলার মহারাজের জবাব, ‘এটা আলাদা বলি?’ দ্বিতীয় প্রশ্নটাও জয়জিতের রাজনীতি নিয়েই যা বাংলার মহারাজকে কিছুটা অস্বস্তিতেও ফেলেছিল বটে। অভিনেতা জানতে চান, ‘ধরো কোনও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব তোমায় ডাকল। কিন্তু তোমার যাওয়ার ইচ্ছে নেই। তাহলে?’যদিও এই প্রশ্নের জবাব দিতে সময় নেয়নি দাদা। তিনি এর উত্তরে বললনে, ‘আমি পারলে যাই। রাজনৈতির প্ল্যাটফর্ম না হলেই যাই। রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ডাকলে সমস্যা কোথায়। আমি আর তুমি এক মঞ্চ শেয়ার করছি। আমি অভিনেতা হয়ে যাইনি, তুমি খেলোয়ার হয়ে যাওনি। রাজনীতির মঞ্চেও তেমনটাই থাকে। রাজনীতিবিদ থাকে, আমি খেলোয়ার হিসেবেই থাকি। পলিটিশিয়ান খেলোয়ার হয় না, আমিও পলিটিশিয়ান হই না। জানি না তা সত্ত্বেও সবাই কেন এত লাফালাফি করে কোথাও গেলে।’
এদিন দাদার মুখ থেকে জয়জিত কে নিয়ে প্রশংসা করতেও দেখা যায় সঙ্গে, অভিনেতা আর তাঁর ছেলের ট্যুরের ছবি নিয়েও ভালো লাগার কথা বললেন সৌরভ নিজেই। বাবা হিসেবে নিজের সঙ্গেও করেন তুলনা।

এর আগেও দাদাগিরির দাদাকে রাজনীতি বিভিন্ন নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে সৌরভকে। সৌরভের সঙ্গে রাজনীতির যোগযূত্রের কেমন অবস্থান তা নিয়ে কৌতুহল অনেকেরই। এর আগেও ‘বাঘাযতীন’ ছবি মুক্তির আগে তৃণমূলের সাংসদ, অভিনেতা দেব এসেছিলেন দাদার সঙ্গে খেলতে। আর প্রশ্ন করেছিলেন, সৌরভ দেশের প্রধানমন্ত্রী বা মুখ্যমন্ত্রী হন তাহলে তিনি কোন বদল আনবেন? তাতে জবাব এসেছিল, ‘আমাদের সমাজে অনেকেই বলেন, আচ্ছা করে দাও। এই করে দাও শব্দটা ঠিক নয়। আসলে কাউকে কিছু করে দেওয়াটা কথা নয়। কারণ এটা মানুষের অধিকার। সেটা তাঁর প্রাপ্য।’ তবে তিনি যে রাজনীতিতে আসতে একেবারেই ইচ্ছুক নন, সেটাও জানিয়ে দেন স্পষ্ট করে

You may also like

Mahanagar bengali news

Copyright (C) Mahanagar24X7 2024 All Rights Reserved