UN:’খাদ্যশস্য কোনওভাবেই মজুত করতে দেওয়া যাবে না’, রাষ্ট্রসংঘে কড়া বার্তা বিদেশ প্রতিমন্ত্রীর

67

মহানগর ডেস্ক: মহামারীর সময় যেরকম অন্যায়ভাবে টিকা মজুত রাখা হয়েছিল, তেমন খাদ্যশস্যের ক্ষেত্রে হতে দেওয়া যাবে না বলে, রাষ্ট্রসংঘে (UN) জানিয়ে দিয়েছে নয়াদিল্লি। এই মুহূর্তে বাজার আগুন। দেশীয় বাজারে দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে গম রপ্তানি করছে না ভারত। কেন্দ্রের কথায়, যাদের সত্যিই দরকার তারাই কেবল পাবে তা। একসময় করোনা টিকার ক্ষেত্রে অভিযোগ উঠেছে, ধনী দেশগুলি টিকা আগে থাকতেই মজুত করে রেখেছিল। যে কারণে দরিদ্র দেশগুলিকে তা জোগাড় করতে বিপুল সংগ্রাম করতে হয়েছে। বুধবার বিদেশ প্রতিমন্ত্রী ভি মুরালিধরণ (V. Muraleedharan) ‘গ্লোবাল ফুড সিকিউরিটি কল টু অ্যাকশন’-এর বৈঠকে জানিয়েছেন, একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটবে না।

তাঁর কথায়, ‘সমাজের কম উপার্জনকারী অংশকে আজ দুটো চ্যালেঞ্জের সঙ্গে লড়তে হচ্ছে। এক মূল্যবৃদ্ধি, অন্যটি হল খাদ্যশস্য সংগ্রহের সমস্যা। এমনকি ভারতের মতো দেশ যাদের কাছে পর্যাপ্ত যোগান রয়েছে, সেখানেও খাবারের মূল্য লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে। যা থেকে এটা পরিষ্কার, মজুত করে রাখার কাজ চলছে। কিন্তু এদেশ এমনটা চলতে দিতে পারেনা’।

বুধবার বৈঠকের সভাপতিত্ব করেন মার্কিন বিদেশ সচিব অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। গত ফেব্রুয়ারিতে রুশ সেনা ইউক্রেনে হামলা করলে, তার প্রভাব গোটা দেশজুড়ে পড়েছে। এরমধ্যে রয়েছে গম। গম রপ্তানির ২৯ শতাংশ সরবরাহ করে রাশিয়া ও ইউক্রেন। এই মুহূর্তে ভারতের ওপরই নির্ভরশীল হচ্ছে বিশ্ব। ভারত বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম গম উৎপাদনকারী দেশ। কিন্তু এবার তাও বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এখনও পর্যন্ত ৬৫ লক্ষ টন গম রপ্তানি করেছিল ভারত। কিন্তু ইতিমধ্যেই সেই সীমানা অতিক্রান্ত হয়ে গিয়েছে। শেষ পর্যন্ত গম রপ্তানি করা বন্ধ করেছে নয়াদিল্লি। যদিওবা পুরোটাই দেশের কথা ভেবে করা হয়েছে।