‘ভোল বদলে’ছেন তৃণমূল নেত্রী, পাশ থেকে সরছে বন্ধুরা!

38

নিজস্ব প্রতিনিধি: ভোল বদলেছেন তৃণমূল নেত্রী! মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই অবস্থান ভালো চোখে দেখছেন না ইউপিএ মিত্ররা। দিন কয়েক আগে মুম্বই এবং দিল্লি গিয়েছিলেন মমতা। দুটি জায়গায়ই তিনি কংগ্রেস বর্জিত বিজেপি বিরোধী ফ্রন্ট গঠনের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে জোরালো সওয়াল করেন। তবে শারদ পাওয়ারের এনসিপি কিংবা উদ্ধব ঠাকরের শিবসেনা কারও কার কাছ থেকেই তেমন সাড়া পাননি মমতা।

দিল্লি, মহারাষ্ট্রের পর হরিয়ানা যাওয়ার ইচ্ছেও প্রকাশ করেছেন মমতা। বিভিন্ন রাজ্যে গিয়ে কংগ্রেস বর্জিত বিজেপি-বিরোধী ফ্রন্ট গঠনের পরিবেশ তৈরি করতে চাইছেন তিনি। মহারাষ্ট্রে গিয়ে ইউপিএকে অস্তিত্বহীন বলে ঘোষণা করেন। নাম না করে কংগ্রেসের সমালোচনাও করেন। কটাক্ষ করেন রাহুলের বিদেশ যাত্রাকে। এরই প্রেক্ষিতে শিবসেনার বর্ষীয়ান নেতা সঞ্জয় রাউত জানান, কংগ্রেস পার্টি ছাড়া বিরোধীদের কোনও রাজনৈতিক ফ্রন্ট বিজেপিকে পরাজিত করতে পারবে না। তিনি বলেন, একমাত্র কংগ্রেসেরই দেশের অধিকাংশ রাজ্যে রাজনৈতিক উপস্থিতি রয়েছে। তাঁর মতে, জাতীয় দল কংগ্রেস ছাড়া বিজেপিকে সরানোর চিন্তা আশাব্যঞ্জক নয়।

বিরোধী দুটি ফ্রন্ট কখনওই স্বাস্থ্যকর প্রতিযোগিতা নয় বলেই মনে করেন সঞ্জয়। তিনি বলেন, কেন্দ্রের শাসক বিজেপির বিরুদ্ধে বিরোধীদের ঐক্যের জন্য বিরোধী দুটি ফ্রন্ট কখনওই স্বাস্থ্যকর প্রতিযোগিতা নয়।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দায়িত্বশীল ও শ্রদ্ধাশীল রাজনীতিক হিসেবে বর্ণনা করেও সঞ্জয় বলেন, কংগ্রেসকে ছাড়া বিজেপিকে হারানোর পরিকল্পনা তাঁর নিজস্ব চিন্তাভাবনা বা উপলব্ধি হতে পারে। কিন্তু শিবসেনা চায় সমস্ত বিরোধী দল এক সঙ্গে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করুক। কংগ্রেস ছাড়া যে বিজেপি-বিরোধী ফ্রন্ট দানা বাঁধবে না, দিল্লিতে তৃণমূলের তরফে দৌত্য করতে যাওয়া প্রশান্ত কিশোরকে তাও স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন এনসিপি নেতা শারদ পাওয়ারও। এবার মমতা মহারাষ্ট্রে গিয়ে তাঁর সঙ্গে কথা বললেও, ইতিবাচক কোনও সাড়া পাননি বলে সূত্রের খবর।

বিজেপি-বিরোধী ফ্রন্টের মুখ হয়ে ওঠা হবে না মমতার!