পড়ুয়াদের ওপর গুণ্ডামি মেনে নেওয়া যায় না, ‘গুণ্ডাদের’ কড়া শাস্তির দাবি গম্ভীরের

9
gautam gambhir

Highlights

  • জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনায় এবার প্রতিক্রিয়া দিলেন দিল্লির বিজেপি সাংসদ তথা প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার
  • এই হামলার ঘটনাকে ‘দেশের নীতি বিরোধী’ বলে আখ্যা দিয়েছেন তিনি
  • যারা এই সন্ত্রাসী কাজে যুক্ত, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া উচিত

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনায় এবার প্রতিক্রিয়া দিলেন দিল্লির বিজেপি সাংসদ তথা প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর। রবিবার সন্ধেবেলা ক্যাম্পাসে ঢুকে একদল মুখে কাপড় ঢাকা দুষ্কৃতী এই হামলা চালায়। এই হামলার ঘটনাকে ‘দেশের নীতি বিরোধী’ বলে আখ্যা দিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে যারা এই সন্ত্রাসী কাজে যুক্ত, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া উচিত বলে দাবি করেছেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন ওপেনার।

দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে রবিবার সন্ধ্যায় ছড়িয়ে পড়ে হিংসার আগুন। যার ফলে মাথায় আঘাত পান ছাত্র সংসদ জেএনইউএসইউ-এর সভাপতি ঐশী ঘোষ। সূত্রের খবর, আড়াই ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলা এই হামলায় আহত হয়েছেন আরও অনেকেই, যদিও সঠিক সংখ্যা এখনও জানা যায়নি। বেশ কিছু আহতকে ভর্তি করা হয়েছে এইমস-এর ট্রমা কেয়ার সেন্টারে। এক বিবৃতিতে জেএনইউএসইউ-দাবি করে, হামলার নেপথ্যে রয়েছে বিজেপির ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ, এবং পড়ুয়াদের পাশাপাশি হামলার নিশানা ছিলেন বেশ কিছু প্রফেসরও। আহত হয়েছেন বাঙালি অধ্যাপিকা সুচরিতা সেন।

বিষয়টি নিয়ে গভীর রাতে একটি টুইট করেন গম্ভীর। তাঁর সাফ কথা, ছাত্রসমাজের ওপর এই ধরনের হামলা মেনে নেওয়া যায় না। গম্ভীর লিখেছেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে এই ধরনের হিংসা সম্পূর্ণভাবে আমাদের দেশের নীতির বিরোধী। মতাদর্শ বা মানসিকতা যাই হোক না কেন, পড়ুয়াদের এভাবে নিশানায় নেওয়া যায় না। যেসব গুণ্ডারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকে এই কাজ করার সাহস দেখিয়েছে তাদের কঠোর শাস্তি দেওয়ার ব্যবস্থা করা হোক।’ পুরো ঘটনায় যদিও বাম ছাত্র পরিষদ ও এবিভিপি একে অপরকে দোষারোপ করেছে। তবে সন্দেহের তির গেরুয়া ছাত্র সংগঠনের দিকেই রয়েছে।


অন্যদিকে গোটা ঘটনার ১৭ ঘণ্টা পর অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে এফআই দায়ের করেছে পুলিশ। তবে এখনও কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।