উজ্জ্বল ত্বক ও ঝলমলে কেশ পেতে ব্যবহার করুন নিম ওয়েল

35

ডেস্ক: যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হয় আমাদের সবাইকে। যে চলতে পারে সে এগিয়ে যায়, আর যে পারে না সে পিছিয়ে পড়ে। আমারা সবাই যুগের সঙ্গেই এগিয়ে চলতে চাই কিন্তু হয়ে ওঠে না। সময় কোথায় আমাদের হাতে? সকালে উঠে নিজে তৈরি হওয়া সেই সঙ্গে সন্তান ও স্বামীকে রেডি করিয়ে কাজে পাঠানো ও নিজেও কাজে যাওয়া। আর যারা গৃহিনী তাদের কোনও কথাই নেই তারাও লেগে পড়েন কাজ করতে ঘরের কাজ থেকে শুরু করে সংসারের খুঁটিনাটি সব কিছুই একা হাতে সামলান দক্ষতার সঙ্গে। নিজেদের জন্য কখনোই আমারা সময় বার করতে পারি না। কিন্তু এবার আমাদের জন্য সময় আমাদেরকেই বার করতে হবে। সময় বার করতে হবে প্রাকৃতিক উপাদানের সঙ্গে। প্রাকৃতিক উপাদানের সঙ্গে হাত মিলিয়েই আমাদের এগিয়ে চলতে হবে। প্রাকৃতিক উপাদান ছাড়া আর কাকেই বা ভরসা করা যায়? তাই আজ এমন একটা প্রাকৃতিক উপাদানের কথা বলব যাতে রয়েছে একাধিক গুণ। সেই প্রাকৃতিক উপাদানটির নাম হল নিম তেল।

একাধিক গবেষনায় পাওয়া গেছে, এই নিম তেল চুল ও ত্বকের জন্য খুবই উপকারি। শুধু তাই নয়,স্কিনের নানান রকম রোগকেও কমাতে সাহায্য করে। তাই যারা নিম শুনলে আটকে ওঠেন তাদের জন্য বলছি এত কিছু জানার পরও কি আটকে উঠবেন? তাহলে আর বেশি সময় নষ্ট না করে জেনে নেওয়া যাক নিমের উপকারিতাগুলি-

১) ত্বককে ফর্সা করতে এর কোনও জবাব নেই। ফর্সা হতে কেউ বা চায়, কিন্তু ওই একই কথা কিভাবে হওয়া যায়? কত প্রোডাক্ট তার আবার কত দাম!! তাই এখন থেকে আর ক্যামিকেল নয় ঘরে বসেই বানিয়ে ফেলুন নিজের জন্য এই ফেস প্যাক। প্রতিদিন নিম তেলের সঙ্গে অল্প লেবুর রস মিশিয়ে তা সারা মুখে ৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন, পাঁচ মিনিটের বেশি কিন্তু নয়। এরপর টোনার লাগিয়ে শুয়ে পড়ুন।
২) আপনি কি আপনার ত্বকের আদ্রতা হারিয়ে ফেলছেন? তাহলে নিম তেলের সঙ্গে ব্যবহার করুন নারকেল তেল ও অলিভ ওয়েল সঙ্গে নিন ভিটামিন e ক্যাপ্সিউল।

৩) ব্রণর দাগকেও দূর করতে উপশমী। আপনার যেখানে ব্রণ হয়েছে সেখানে অল্প করে নিম তেল লাগিয়ে শুয়ে পড়ুন, পরদিন সকালে উঠে দেখবেন ব্রণ গুলো ছোটো হয়ে গেছে এবং দাগও অনেক কম হয়ে গেছে।

৪) নিম তেল কিন্তু আপনার মুখের বলিরেখাও কমাতে সাহায্য করে।

৫) নিম তেল খুশকির সমস্যাও দূর করে। মাথায় তেল দেওয়ার সপময় অল্প গরম করে লাগিয়ে রাখুন। পরদিন সকালে শ্যাম্পু দিয়ে ধূয়ে ফেলুন।

৬) মুখের জেল্লা হারিয়ে গেছে? প্রতিদিন একবার করে নিম তেল ও অলিভ ওয়েল দিয়ে মাসাজ করুন ১৫ মিনিট। দেখবেন জেল্লা বাড়বে।
৭) প্রতিদিন সকালে খালি পেটে অল্প গরম জলে ৩ থেকে ৪ ফোঁটা নিম তেল ভিটামিন c মিশিয়ে খান।

৮) জামাকাপড়কে পরিস্কার রাখতে নিমজল দিয়ে ধুন, দেখবেন সব ময়লা দূর হয়ে গেছে।