Amravati: ‘দাদার কারও সঙ্গে শত্রুতা ছিল না ‘, বললেন মৃত উমেশের ভাই

63
Amravati: 'দাদার কারও সঙ্গে শত্রুতা ছিল না ', বললেন মৃত উমেশের ভাই

মহানগর ডেস্ক: মহারাষ্ট্রের অমরাবতীতে (Amravati) উমেশ কোহলে (Umesh Kolhe) খুনের ঘটনায় ভাই মহেশ কোহলে (Mahesh Kolhe) জানিয়েছেন, তাঁর ভাইয়ে কারোর সঙ্গে কোনও শত্রুতা ছিলনা। তাঁর বক্তব্য, ২১ জুন দোকান থেকে বাড়ি যাচ্ছিলেন ভাই। তাঁর স্ত্রী আর তাঁর ছেলে অন্য বাইকে বসে আসছিলেন। সেই সময় রাস্তার মাঝেই ঘটনাটি ঘটে এবং অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। অমরাবতীতেও উদয়পুরের মত উমেশ কোহলে নামে ৫০ বছর বয়সী মেডিক্যাল স্টোরের মালিককে নির্মমভাবে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে।

মৃত উমেশ কোলহের ভাই বলেন, ‘ভাই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে নূপুর শর্মাকে নিয়ে কিছু মেসেজ ফরওয়ার্ড করেছিলেন। কিন্তু আমরা বুঝতে পারছি না, ওই মেসেজ কারোর মৃত্যুর কারণ হতে পারে কী করে? নিহতের ভাই জানিয়েছেন, ‘এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি কেন হত্যা করা হয়েছে উমেশ কোলহেকে? তিনি কোনও হুমকির কথা আমাদেরকে জানাননি। কোনও ব্যক্তিগত আক্রমণ কাউকে নিয়ে করেননি ভাই। এমনকি কারোর সঙ্গে কোনও বিবাদেও জড়াননি।

আরও পড়ুন: বাড়িতে অনবরত চুরি হচ্ছে? বাস্তু ঠিক আছে তো!

মহেশ কোলহে বলেছেন, নূপুর শর্মা সম্পর্কিত মেসেজ ফরোয়ার্ড করার ফলে যে হামলা হয়েছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। পুলিশ আমাদের ভিডিও দেখিয়েছে, তাতে ছয় জন লোককে দেখা গিয়েছে। তাঁদের ফোন ঘটনার দিন থেকে পুলিশের কাছে রয়েছে। কারোর উপর সন্দেহ করার কোনও কারণ নেই। তাঁর বক্তব্য, এনআইএ-র মতো এজেন্সি ঘটনার তদন্ত করছে। তাই ঘটনার সত্যতা অবশ্যই সামনে আসবে।

উমেশ কোহলে মেডিক্যাল জিনিসের ব্যবসা করতেন। এদিন দোকান থেকে বাড়ি ফেরার সময় রাস্তায় তাঁর গলা কেটে হত্যা করা হয়। এই মামলায় পুলিশ ৬ জনকে গ্রেফতার করেছেন। বলা হচ্ছে, হত্যার পিছনে কারণ হল সেই নূপুর শর্মাই। সম্প্রতি এই ব্যক্তি মিসেস শর্মাকে নিয়ে কিছু পোস্ট শেয়ার করেছিলেন। এই ধরনের ঘটনা উদয়পুরেও ঘটেছে যেখানে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে এক দরজিকে।