আশা করা যায় ভবিষ্যতেও ভারতের স্বতন্ত্র বৈদেশিক নীতি বজায় থাকবে: চিন

36

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা পরিস্থিতি নিয়ে গোটা বিশ্ব এখন চিনের প্রতি বিরূপ। এর মধ্যে আমেরিকার সঙ্গে সম্পর্ক একেবারে তলানিতে। দুই দেশের মধ্যে যেন ঠান্ডা যুদ্ধ শুরু হয়েছে। এদিকে সীমান্ত নিয়ে ভারতের সঙ্গেও চিনের দ্বন্দ্ব চলছে। এমতাবস্থায় চিন জানাল, আশা করা যায় অতীতের মতো আগামীদিনেও ভারত স্বতন্ত্র বৈদেশিক নীতি বজায় রাখবে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেন, ভারত অতীতেও নিরপেক্ষ অবস্থান নিয়েছে এবং আগামী দিনেও সেই অবস্থান বজায় রাখবে। সেই কথার প্রেক্ষিতেই চিনা বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস যে বিশ্বে মাল্টি পোলারাইজেশনের অন্যতম শক্তি হিসেবে ভারত স্বতন্ত্র কূটনৈতিক নীতি বজায় রাখবে এবং বিশ্ব শান্তি বজায় রাখার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা বহন করবে।’

আসলে সম্প্রতি, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের কাছে সামরিক মহড়া করে ভারতীয় নৌসেনা। তাতে যোগ দিয়েছিল আমেরিকান নৌসেনার। মার্কিন নৌবাহিনীর দুটি এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার নিমিৎজ ও রোনাল্ড রেগান এই মহড়ায় যোগ দেয়। ভারতের সঙ্গে মার্কিন সেনাবাহিনীর এই যৌথ মহড়া ভালোভাবে নেয়নি চিন।

অন্যদিকে, সম্প্রতি হিউস্টনে চিনা দূতাবাস বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে ট্রাম্প সরকার। কিছুদিন আগেই হংকংয়ে ন্যাশানাল সিকিউরিটি আইন লাগু করেছে বেজিং। গোটা বিষয়টি একেবারেই ভালোভাবে নেয়নি আমেরিকা। শুরু থেকেই মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ করে আসছে তারা। এর পাশাপাশি চিন সাগরে চিনের দাদাগিরিও সুনজরে দেখেনি ট্রাম্প প্রশাসন। অন্যদিকে, কদিন আগেই হিউস্টনে চিনা দূতাবাসে আগুন লাগে। কিন্তু মার্কিন দমকলকর্মীরা সেখানে গেলে তাদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি। অভিযোগ, বেশ কিছু গোপন নথি আসলে পুড়িয়ে ফেলেছিলেন চিনা দূতাবাসের কর্মীরা।