Buddhadeb Bhattacharya: ‘আমি শোকাহত ও মর্মাহত…’ তরুণ মজুমদারের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর

74
Buddhadeb Bhattacharya: 'আমি শোকাহত ও মর্মাহত...' তরুণ মজুমদারের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর

মহানগর ডেস্ক: চলচ্চিত্র জগতে নক্ষত্র পতন। প্রয়াত তরুণ মজুমদার (Tarun Majumdar)। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৯১ বছর। গত ১৪ই জুন থেকে ভর্তি ছিলেন এসএসকেএম হাসপাতালে। দীর্ঘদিন ধরে ভুগছিলেন কিডনির সমস্যায়। অবস্থার অবনতি হলে গতকাল তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়। আজ অর্থাৎ সোমবার সকাল ১১টা ১৭ মিনিটে জীবনাবসন হয় তাঁর। পরিচালকের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য (Buddhadeb Bhattacharya)।

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে বুদ্ধদেব বাবু বলেছেন, “তরুণ মজুমদারের প্রয়াণে আমি শোকাহত ও মর্মাহত। তাঁর পরিচালিত চলচ্চিত্র যেমন মানুষের মনে থেকে যাবে, তেমনই মানুষ মনে রাখবেন এমন একজন ব্যক্তিকে যিনি আমৃত্যু ছিলেন আপসহীন”। সকাল থেকেই চলচ্চিত্র জগতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। এদিকে পরিচালকের শেষ ইচ্ছে অনুযায়ী, তাঁর মরদেহে কেউ ফুল বা মালা দেয়নি। আয়োজন করা হয়নি কোনও শোক যাত্রার।

আরও পড়ুন : ফুলমালা দিয়ে সাজানো নয়, দেহ দান করা হবে হাসপাতলে এমনটাই ইচ্ছে ছিল পরিচালকের

এমনকি তাঁর ইচ্ছেকে মর্যাদা জানিয়ে কোনওরকমের বাড়াবাড়ি করা হচ্ছে না। প্রসঙ্গে সিপিএম নেতা রবীন দেব জানিয়েছেন, এসএসকেএম হাসপাতাল থেকে এনটিওয়ান স্টুডিওতে নিয়ে যাওয়া হবে তাঁর দেহ। সেখান থেকেই আবার এসএসকেএম-এর অ্যাকাডেমিক বিল্ডিংয়ে নিয়ে আসা হবে। দেহ দান করা হবে হাসপাতালে। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে পরিচালককে গান স্যালুট দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাঁর পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, এসবের অত্যন্ত বিরোধী ছিলেন তরুণবাবু। তাই সরকারি সেই প্রস্তাবও ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরের প্রতিমন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন জানিয়েছেন, “প্রয়াত চিত্রপরিচালকের পরিবার যা চাইবেন, সেই মতই ব্যবস্থা করা হবে”।