মনিরুলের কোমরে দড়ি বেঁধে ঘুরিয়েছিলাম, লাভপুরে তোপ হুমায়ুনের

7
kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি : মনিরুল ইসলাম ক্রিমিনাল। ওকে কোমরে দড়ি বেঁধে ঘুরিয়েছিলাম। আজ, মঙ্গলবার লাভপুরের আমোদপুরের জনসভায় এই ভাষাতেই নির্দল প্রার্থী মনিরুল ইসলামকে আক্রমণ শানালেন ডেবরার তৃণমূল প্রার্থী হুমায়ুন কবীর। বীরভূমে বিজেপি এক থেকে দুটি আসনের বেশি পাবে না বলেও মন্তব্য করেন প্রাক্তন এই পুলিশ কর্তা।

এক সময় তৃণমূলের দাপুটে নেতা হিসেবে এলাকায় পরিচিত ছিলেন মনিরুল ইসলাম। ঘাসফুল চিহ্নে দাঁড়িয়ে একবার বিধায়কও হন তিনি। ওই সময় একই পরিবারের তিনজনকে নৃশংসভাবে খুনের ঘটনায় নাম জড়ায় মনিরুলের। পরে নানা কারণে দলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয় মনিরুলের। দলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গেও বনিবনা হচ্ছিল না বলেও অভিযোগ। এসব নানা কারণে শেষতক দল ছেড়ে দেন মনিরুল।

লাভপুরের এই প্রাক্তন বিধায়ক হাতে তুলে নেন গেরুয়া ঝান্ডা। তবে সেখানেও বিদ্ধ হন সমালোচনার তিরে। মনিরুলকে দল থেকে বের করে দেওয়ার দাবিও ওঠে। দলের অন্দরে শুরু হয় প্রবল বিক্ষোভ। দলের অভ্যন্তরীণ চাপে শেষমেশ টিকিট পাননি মনিরুল। দাঁড়িয়ে পড়েন নির্দল হিসেবে।

লাভপুরে যে মনিরুল একটিা ফ্যাক্টর, তা জানেন প্রাক্তন আইপিএস হুমায়ুনও। সেই কারণেই এদিন হুমায়ুন তীব্র আক্রমণ শানান লাভপুরের এই নির্দল প্রার্থীকে। তিনি বলেন, মনিরুল ইসলাম একটা ক্রিমিনাল। ওকে আমি ধরেছিলাম। প্রচুর অস্ত্র উদ্ধার হয়েছিল। স্বীকারও করেছিল অনেক কিছু। কোমরে দড়ি দিয়ে ঘুরিয়েছিলাম। ও নিজেই বলে, পায়ের তলায় তিনজনকে পিষে মেরেছে। মানুষ ২৯ তারিখে ওকে বুঝিয়ে দেবে। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, মনিরুল নামক নির্দল কাঁটায় বিদ্ধ হতে পারে রাজ্যের শাসক দল। ঘাসফুল প্রার্থীর অনায়াস জয়ের পথে বাধার প্রাচীর গড়ে তুলতে পারেন লাভপুরের এই প্রাক্তন বিধায়ক। সেই কারণেই হুমায়ুনের নিশানায় মনিরুল।