‘নিজের দায়িত্বে সমস্ত সমস্যার সমাধান করব’, আন্দোলনকারী চাকরিপ্রার্থীদের ফোনে আশ্বাস মমতার

101

মহানগর ডেস্ক: বিগত কয়েকদিনে চাকরিপ্রার্থীদের আন্দোলনকে ঘিরে কলকাতার হাওয়া গরম হয়ে উঠেছে। মঙ্গলবার ঈদের সকালে পুলিশ আধিকারিকের মারফত আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ফোনে কথা বললেন মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ধর্মতলায় মাতঙ্গিনী হাজরার মূর্তির পাদদেশে আন্দোলন করছেন চাকরি প্রার্থীরা। জানা গিয়েছে, এদিন সেখানেই ফোন যায় মুখ্যমন্ত্রীর। আন্দোলনকারীদের দাবি, তিনি সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।

সূত্র অনুযায়ী, আন্দোলনকারীদের সমস্ত দাবি শুনেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এক আন্দোলনকারী জানিয়েছেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী ফোন করেছিলেন। উনি আমাদের পজিটিভ বার্তা দিয়েছেন। সহানুভূতির সঙ্গে গোটা বিষয়টা দেখবেন বলেছেন।’ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন যে, ‘ঈদের দিন আমাদের এরম অসহায় অবস্থা দেখে এগিয়ে এসেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। উনি নিজের হাতে ব্যাপারটা নিয়েছেন। শিক্ষা দফতরের কাছ থেকে তথ্য নিয়ে পুরো বিষয় দেখার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি’।

প্রসঙ্গত, মেধাতালিকায় নাম থাকা সত্বেও, চাকরি পাননি বলে অভিযোগ জানিয়েছেন বেশকিছু চাকরি প্রার্থীরা। নিজেদের দাবি নিয়ে ধর্মতলায় গান্ধীমূর্তির পাদদেশে এসএলএসটি চাকরিপ্রার্থীরা আন্দোলন করেন। একইভাবে ধর্মতলার মোড়ে মাতঙ্গিনী হাজরার মূর্তির পাদদেশে বসেন শরীরশিক্ষা, কর্মশিক্ষার চাকরিপ্রার্থীরা। পাস করেছেন ২০১৬-তে। কিন্তু এখনও মেলেনি চাকরি। এরকম ১৩ হাজারের বেশি চাকরিপ্রার্থী আন্দোলনে নেমেছেন।

ঝড়, জল, রোদকে উপেক্ষা করে ২৬ দিন ধরে প্রতিবাদ করে চলেছেন তাঁরা । আজ ঈদের সকালে ডিসি সাউথ আকাশ বাগারিয়ার ফোন মারফত তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আন্দোলনকারীদের মধ্যে একজন জানিয়েছেন, ‘হঠাৎই পুলিশের একজন কর্তা এসে বলেন মুখ্যমন্ত্রী ফোনে কথা বলতে চান’। বিক্ষোভকারীরা জানিয়েছেন, “আমরা যারা প্যানেলে রয়েছি, তাঁদের প্রতি মানবিক হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। আমাদের সমস্যার তাড়াতাড়ি যাতে সমাধান করা যায়, তার সদর্থক বার্তা দিয়েছেন উনি”। আরেকজন চাকরিপ্রার্থী বলেছেন, ‘আমরা অনেকটাই আশার আলো দেখছি। দিদির সঙ্গে তো আগে এভাবে কথা হয়নি। আমরা খুশি। তবে যতক্ষণ না নিয়োগের নোটিস আসছে, ততদিন একটু আতঙ্কেই থাকব’।