ইউ টার্ন নেওয়াই নাকি রাজনীতির নিয়ম, বেফাঁস মন্তব্যে জটিলতায় পাক প্রধান

61

ডেস্ক: ‘ইউ টার্ন’ বা পালটি খাওয়াই নাকি রাজনীতির নিয়ম। এহেন বেফাঁস মন্তব্য করে বেজায় জটিলতায় পড়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি বলেছেন, সময়মত পালটি না খাওয়ার কারণেই হিটলার ও নেপোলিয়নকে যুদ্ধ হারতে হয়েছিল। এইভাবে নাৎসি নেতার প্রসঙ্গ উত্থাপন করেই আরও বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন ইমরান খান। কার্যত পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী এহেন বক্তব্যের মাধ্যমে নিজেকে হিটলারের থেকে স্মার্ট বোঝাতে চেয়েছেন। আর এটাই তাঁর কাছে যেন বুমেরাং হয়ে ফিরে এসেছে। কারণ ক্ষমতায় আসার আগে ইমরান খান একাধিক প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতি রাখার বেলায় একেবারে পালটি খাওয়ার যোগাড় হয়েছে পাক প্রধানের।

বিগত কিছু ঘটনায় নীতিগত প্রশ্নে আপোস করার জন্যই একেবারে ঘরে বাইরে সমালোচনার মুখে পড়েছেন ইমরান খান। কারণ নির্বাচনে জিততে তিনি যে সমস্ত প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তার অধিকাংশই এখন লঙ্ঘন করতে বসেছেন। সে কখনও ধর্মীয় মৌলবাদীদের দাবি মেনে নেওয়া হোক, কিংবা সন্ত্রাসে মদত, আবার কখনও ঋণের ভিক্ষা পাত্র নিয়ে সৌদি আরব বা আন্তর্জাতিক মুদ্রা ভাণ্ডারের দরজার সামনে দাঁড়ানো, বলতে গেলে কিছুই প্রায় বাদ নেই। এদিকে নির্বাচনের আগে ঠিক উলটো সুর গেয়েছিলেন তিনি। এরপর ইমরানের এরকম পালটি খাওয়ার পর ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন।

ইমরান খান সাংবাদিকদের সামনে বলেন, ‘পরিস্থিতি অনুযায়ী পাল্টি খেতেই হয়, এটাই রাজনীতি। যে পাল্টি খেতে পারে না, সে কোনও নেতাই নয়।’ এমনটাই জানা গিয়েছে পাক সংবাদ সংস্থা জিও নিউজ মারফত। এদিকে পাক প্রধানমন্ত্রীর এহেন বক্তব্যের পর পাকিস্তানের একটি সংবাদপত্রের সম্পাদকীয়তে এক সাংবাদিক লিখেছেন, ‘একদম ঠিক আছে। আমার মনে হচ্ছে এই বক্তব্য নিয়েও এবার ইউ টার্ন নেবেন ইমরান খান। এটাই ওঁর স্বভাবসিদ্ধ ক্লাসিক স্টাইল।’