কেরল রাজ্য সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তৃতায় বিজেপিকে এক হাত নিলেন সীতারাম ইয়েচুরি

27

মহানগর ডেস্ক: পরপর দুবার কেরলে সরকার গড়েছে সিপিএম। মঙ্গলবার দিয়ে শুরু হয়েছে সিপিএমের কেরল রাজ্য সম্মেলন। যার উদ্বোধনী বক্তৃতায় এদিন বিজেপিকে একহাত নিলেন সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি। ভারতীয় জনতা পার্টিকে নিশানায় রেখে কোচির মেরিন ড্রাইভে বক্তৃতা দিয়েছেন সাধারণ সম্পাদক।

এদিন সীতারাম ইয়েচুরির বক্তৃতা নিয়ে বুধবার সিপিএমের মুখপত্র গণশক্তি পত্রিকাতে যে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে, তাতে কংগ্রেস সম্পর্কিত কোনও মন্তব্য নেই। বরং উল্টে বিজেপি তথা রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের বিপত্তিকে তুলে ধরেছেন সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, কেরলের বাম গণতান্ত্রিক সরকার যে বিকল্প তুলে ধরেছে তা দৃষ্টান্তমূলক। ইডি, সিবিআই এবং নির্বাচন কমিশনের মত সংস্থাকেও এখন সরাসরি রাজনৈতিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করছে নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহের দল। কিন্তু যেখানে সিপিএম সরকার চালায়, সেখানে বিরোধী দল শূণ্য’।

অপরদিকে আগামী ২৫ বছরে কেরল কোন দিকে এগোতে চায়, সেই নিয়ে রুট ম্যাপ দলিল সম্মেলনের প্রথম দিন পেশ করেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী। এমনিতে সমস্ত কিছু পার্টির মধ্যে আলোচনা করে তারপরে তা সরকারি স্তরে অনুমোদন দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে সরকারি বৈঠক হয়ে ওঠে সিলমোহরের বৈঠক। কিন্তু এদিন আগামী ২৫ বছরের রুট ম্যাপ পেশ করাকে অনেকে রাজনৈতিক উন্নাসিকতা মনে করছেন। কারণ যে রাজ্যে ঘনঘন ক্ষমতা বদল হয়, সেখানে আগামী ২৫ বছরের পরিকল্পনা করে কি লাভ!

তবে এদিন সাধারণ সম্পাদক কংগ্রেসকে নিয়ে কোনও মন্তব্য না করায় জোর চর্চা জারি রয়েছে সিপিএমের অন্দরমহলে। এরইসঙ্গে সম্মেলনে খসড়া প্রতিবেদন পেশ করেছেন বিদায়ী সম্পাদক কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণন। উপস্থিত ছিলেন আরও অনেক সদস্যরা। এই প্রথম সম্মেলনে উপস্থিত থাকতে পারেন নি প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ভিএস অচ্যুদানন্দন। জানা গিয়েছে, শারীরিক কারণে এদিন সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন না তিনি। কিন্তু এদিন সম্মেলনে বিজেপি বিরোধী মন্তব্য করতে দেখা গেল সীতারাম ইয়েচুরিকে। প্রশ্ন এখন, হঠাৎ কংগ্রেস বিরোধী কোনও মন্তব্য কেন তিনি করেননি! রাজনৈতিক জল্পনা তুঙ্গে।