‘আর কত জনের অকালে প্রাণ গেলে পরিবহণ মন্ত্রীর হুঁশ ফিরবে?’, নদিয়ার পথ দুর্ঘটনার পর টুইট শুভেন্দুর

14

মহানগর ডেস্ক: নদিয়ার গতকাল গভীর রাতে মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। আহত আরও ৫ জন। এই ঘটনার জেরে রাজ্যের শাসক দলকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তিনি প্রশ্ন করেন, ‘আর কত জনের অকালে প্রাণ গেলে পশ্চিমবঙ্গের পরিবহণ মন্ত্রীর হুঁশ ফিরবে?’ এছাড়াও তিনি বলেন, ‘ট্রাফিক পুলিশ কিংবা সিভিক পুলিশদের টাকা তোলা ছাড়া আর কোনও কাজ জানা নেই।’

সূত্রের খবর, উত্তর ২৪ পরগনার বাগদা থানা এলাকা থেকে একটি মৃতদেহ নিয়ে শব দাহ করার উদ্দেশ্যে নবদ্বীপ শ্মশান রওনা দেয় গতকাল রাতে। জানা যায়, গতকাল রাত বারোটা নাগাদ যখন নদিয়ার হাঁসখালি থানার ফুলবাড়ী এলাকা দিয়ে ওই ম্যাটাডোরটি মৃতদেহ নিয়ে আসছিল, ঠিক তখন ওই এলাকায় একটি পাথর বোঝাই লরিটি দাঁড়িয়েছিল। আচমকা দাঁড়িয়ে থাকা লরিটিকে সজোরে ধাক্কা মারে ম্যাটাডোর। গাড়িটি ছিটকে সাইডে পড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ১৮ জনের।

গভীর রাতে পথ দুর্ঘটনা হওয়ার, সেভাবে কেউই খবর পাননি। তাই কেউ উদ্ধার করতেও আসেনি। পরে খবর পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দা এবং হাঁসখালি থানার পুলিশ কোনও রকমে তাঁদেরকে উদ্ধার করে শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যায়। তখনই চিকিৎসকরা ১৮ জনকে মৃত বলে ঘোষণা করে। বাকিরা আশঙ্কাজনক অবস্থায় এখন হাসপাতালে ভর্তি।

এই ঘটনার পর রবিবার সকালে টুইট করে শোক প্রকাশ করেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তিনি লেখেন, ‘নদিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনার দুর্ভাগ্যজনক শিকারদের জন্য আমার হৃদয় বেরিয়ে যায় যেখানে শ্মশানে যাওয়ার পথে ১৮ জন মানুষ প্রাণ হারিয়েছিলেন। শোকস্তব্ধ পরিবারের প্রতি আমরা সমবেদনা এবং আহতদের দ্রুত আরোগ্যের জন্য প্রার্থনা। বর্তমানে যদিও পরিবহণ মন্ত্রী কেএমসির নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত।’

এরপর তিনি রাজ্যের শাসক দলকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন তিনি। বলেন, ‘আর কত দুর্ঘটনা পশ্চিমবঙ্গের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিবেককে জাগ্রত করবে! তাঁকে উপলব্ধি করাবে এ রাজ্যের ট্রাফিক বিভাগ, বিশেষ করে জেলাগুলিতে ভয়ঙ্করভাবে কম কর্মী এবং অপ্রশিক্ষিত সিভিক পুলিশের মাধ্যমে কাজ চলছে। ওঁরা আসলে জানেই না আসলে তাঁদের কাজটা কি? ওঁদের প্রাথমিক কাজই হল, রাস্তায় চলা যানবাহনের থেকে টাকা সংগ্রহ করা।’