Home National কিভাবে FD তে টাকা ইনভেস্ট করলে মিলবে বেশি সুদ! জেনে নিন বিস্তারিত

কিভাবে FD তে টাকা ইনভেস্ট করলে মিলবে বেশি সুদ! জেনে নিন বিস্তারিত

by Mahanagar Desk
1 views

মহানগর ডেস্ক: দীর্ঘ সময় ধরে পছন্দের বিকল্প বলে ধরা হয়ে থাকে ফিক্সড ডিপোজিটকে। সাধারণত মানুষ এফডিতে বিনিয়োগ করে থাকেন আর্থিক লক্ষ্য যেমন বাড়ি তৈরি, গাড়ি কেনা, বিয়ে, বা উচ্চশিক্ষার জন্য। এছাড়াও আপনি অবসরজীবনের ভাল পরিকল্পনাতেও সাহায্য পেয়ে থাকেন এফডিতে বিনিয়োগ করলে।

তবে বিনিয়োগকারীদের কিছু ব্যাপার মাথায় রাখা জরুরী এফডি অ্যাকাউন্ট খোলার আগে। সুরক্ষিত এবং নিশ্চিত রিটার্ন পাওয়ার কারণে ফিক্স ডিপোজিটকে বিনিয়োগের একটি ভাল উপায় মনে করা হয়। কিন্তু ভাবনা চিন্তা না করে এফডিতে বিনিয়োগ করা ঠিক নয়।জেনে নিন বিস্তারিত:

এফডি কত সময়ের জন্য নেওয়া উচিৎ :

এফডি করার আগে আপনার টেনিয়োর ফিক্স করা প্রয়োজন। কারণ যদি ম্যাচিওরিটির আগেই ফিক্সড ডিপোজিট ভাঙেন তাহলে কখনও কখনও আপনাকে জরিমানা হিসেবে কিছু ক্ষতিপূরণ দিতে হয়। এর পাশাপাশি ডিপোজিট থেকে পাওয়া ফায়দাও কম হয়ে যায়। ফলে প্রথমে এটা ঠিক করে নিন যে আপনি নিজের সঞ্চিত অর্থ কত দিনের জন্য বিনিয়োগ করবেন।

লোনের সুবিধা আছে কী নেই 

সাধারণত মানুষ লোনের জন্য আবেদন করেন টাকার দরকার পড়লে।তবে যদি আপনি এফডি করেন তাহলে স্বাভাবিকভাবেই আপনি তার বিরুদ্ধে লোন হাসিল করার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। এফডির অধীনে আপনি আপনার বিনিয়োগ করা পুঁজির ৭৫ শতাংশ আপনি লোন হিসেবে নিতে পারেন। আর আপনাকে এফডির সুদের হার থেকে ২ শতাংশ বেশি সুদ দিতে হবে। এফডির দেখিয়ে লোন নিলে লোনের সময়সীমা এফডির সময়সীমার সমান সমান হয়। যদি আপনি ১০ বছরের জন্য এফডি করেন আর দু বছরের মাথায় আপনি লোনের জন্য আবেদন করেন, তাহলে আপনার কাছে লোন শোধ করার জন্য আট বছরের সময় থাকবে।

এফডির উপর সুদের হার:

এটা সবচেয়ে বড় একটা ফ্যাক্টর, যার উপর সকলের নজর থাকে। আরবিআই সময় সময়ে সুদের হারে পরিবর্তন করে থাকে। তার প্রভাবও এফডি দরের উপরও পড়ে। এছাড়াও সমস্ত ব্যাঙ্কের সুদের হারও আলাদা আলাদা হয়। তো অর্থ বিনিয়োগের আগে আপনি সেটাও পরীক্ষা করে নেবেন।

এফডির সময়সীমা:

এফডি আপনি নিজের প্রয়োজন অনুযায়ী করতে পারেন। যদি আপনার কাছে এখন প্রয়োজনের তুলনায় বেশি অর্থ থাকে, আর আপনার মনে হয়, ৫ বা ১০ বছর পর আপনার এই অর্থ কাজে লাগবে তাহলে আপনি তত সময়ের জন্যই এফডি করাতে পারেন। স্বাভাবিকভাবেই এক বছরের তুলনায় ১০ বছরের এফডিতে রিটার্ন বেশি হবে। তো আপনি প্রয়োজন মোতাবেকই যথাসম্ভব বেশি সময়ের জন্য এফডি করাতে পারেন।

অন্যদিকে,মানুষ বেশি লাভবান হচ্ছেন ল্যাডার স্ট্র্যাটেজি মেনে এফডি-তে টাকা ইনভেস্ট করে। ল্যাডার স্ট্র্যাটেজি থেকে ফিক্সড ডিপোজিট করলে কেবল বেশি সুদ পাওয়া যায় না, বরং লিক্যুইডিটির সমস্যা কম দেখা দেয়।এফডি ভাঙার দরকার পড়বে না এই ক্ষেত্রে টাকার দরকার পড়লে৷আপনার যদি দরকার পড়ে তাহলে প্রি ম্যাচিউর উইথড্রয়েলে বেশি লোকসান হবে না যতটা সাধারণ এফডি-র ক্ষেত্রে হয়।ল্যাডার স্ট্র্যাটেজির সবচেয়ে বড় সুবিধা হল এখানে বেশি সুদ পাওয়া যায় ৷ সাধারণত ব্যাঙ্ক ৩ বছরের এফডি-তে বেশি সুদ দিয়ে থাকে৷ তিন রকমের সুদ পাবেন তিনটি এফডি থেকে৷

কীভাবে টাকা রাখবেন ল্যাডার স্ট্র্যাটেজিতে:

এফডি-তে টাকা রাখার ক্ষেত্রে টাকা ভাগ করে ইনভেস্ট করতে হয় ল্যাডার স্ট্র্যাটেজির ক্ষেত্রে৷ একটি এফডি-তে ইনভেস্ট না করে নয় বরং আপনার টাকা ভাগ করে রাখুন একাধিক ফিক্সড ডিপোজিটে। এফডিতে টাকা ভাগ করে রাখুন তিনটি ভাগে একটি ১ বছরের জন্য, ৩ বছরের জন্য ও ৫ বছরের জন্য।এরপর,৩ বছরের জন্য আবার ইনভেস্ট করে দিন এক বছরের এফডি ম্যাচিউর হওয়ার সাথে সাথে।এই ভাবে সময় বাড়াতে থাকুন প্রত্যেক এফডি- ম্যাচিউর হওয়ার পর৷

You may also like

Mahanagar bengali news

Copyright (C) Mahanagar24X7 2024 All Rights Reserved