Home National বন্ড কেনায় শীর্ষে কে? কে কত পেল? জানাল কমিশন

বন্ড কেনায় শীর্ষে কে? কে কত পেল? জানাল কমিশন

Who is the top buyer of electoral bonds? Who got how much? Reported Commission

by Mahanagar Desk
45 views

মহানগর ডেস্ক : সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পর স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া বা এসবিআই গত মঙ্গলবার নির্বাচনী বন্ডের তথ্য জমা দিয়েছিল জাতীয় নির্বাচন কমিশনকে। সেই তথ্য প্রকাশ্যে এনেছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। সেই বন্ডের ক্রেতা এবং প্রাপক দলের লম্বা তালিকা ওয়েবসাইটে প্রকাশও করে দিয়েছে। তালিকায় দেখা যাচ্ছে, বন্ড কেনায় শীর্ষে রয়েছে বিতর্কিত লটারি ব্যবসায়ী মার্টিন সান্তিয়াগোর সংস্থা ‘ফিউচার গেমিং অ্যান্ড হোটেল সার্ভিসেস’। এই সংস্থাটি কিনেছে মোট ১,৩৬৮ কোটি টাকার নির্বাচনী বন্ড। বন্ড কেনায় টাকার অঙ্কের নিরিখে তার পরেই রয়েছে বিখ্যাত তেলুগু ব্যবসায়ী কৃষ্ণা রেড্ডির সংস্থা ‘মেঘা ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড’। তারা ৯৬৬ কোটি টাকার নির্বাচনী বন্ড কিনে রাজনৈতিক দলকে অনুদান দিয়েছে। মূলত হায়দরাবাদ কেন্দ্রিক এই সংস্থা একাধিক সরকারি প্রকল্পের বরাত পেয়েছে বলেও জানা যাচ্ছে। মহারাষ্ট্রের ‘কুইক সাপ্লাই চেন প্রাইভেট লিমিটেড’ ৪১০ কোটি টাকার বন্ড কিনেছে। এই সংস্থার তিন অধিকর্তার এক জন রিলায়্যান্স গোষ্ঠীর একাধিক সংস্থার অধিকর্তা পদে রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। ‘হলদিয়া এনার্জি লিমিটেড’ ৩৯৫ কোটি টাকার বন্ড কিনেছে। মুম্বইয়ের ব্যবসায়ী অনিল আগরওয়ালের ‘বেদান্ত লিমিটেড’ আবার ৩৮৬ কোটি টাকার বন্ড অনুদান হিসাবে দিয়েছে। ‘এসেল মাইনিং অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড’ নামের একটি সংস্থা ২২৪.৫ কোটি টাকার বন্ড কিনেছে বলে দেখা যাচ্ছে কমিশনের ওয়েবসাইটে দেওয়া তালিকায়।

বন্ড কেনায় শীর্ষস্থান দখল করা লটারি ব্যবসায়ী সান্তিয়াগো নানা কারণে বার বার সংবাদ শিরোনামে থেকেছেন। ব্যবসায় তাঁর উত্থানের কাহিনী নজরে পড়ার মতো। মায়নমারের ইয়াঙ্গনে শ্রমিক দিনমজুর হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেন তিনি। ১৯৮৮ সালে ভারতে ফিরে এসে তামিলনাড়ুতে শুরু করেন লটারি ব্যবসা। পরে তাঁর এই ব্যবসা ছড়িয়ে পড়ে কেরল এবং কর্নাটকে। আরও পরে উত্তর-পূর্ব ভারত, এমনকি নেপাল এবং ভুটানে লটারি ব্যবসা শুরু করেন তিনি। বর্তমানে সান্তিয়াগোর সংস্থা আবাসন, বস্ত্র শিল্পেও অর্থ বিনিয়োগ করেছে। ২০১৯ সাল থেকে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ইডি অর্থ তছরুপ প্রতিরোধ আইন বা পিএমএলএ আইন ভাঙার অভিযোগে সান্তিয়াগোর সংস্থার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে। সংস্থাটির কোয়েম্বাতূর এবং চেন্নাই দফতরে তল্লাশিও চালানো হয়। নির্বাচন কমিশনের দেওয়া তালিকা থেকে জানা গেছে, কেবল সান্তিয়াগোর সংস্থাই নয়, বন্ড কেনার নিরিখে প্রথম ৩০টি সংস্থার ১৪টিতেই গত কয়েক বছরে তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে সিবিআই, ইডি কিংবা আয়কর দফতরের আধিকারিকেরা। মেঘা ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার সংস্থার একাধিক অফিসে ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে হানা দেয় আয়কর দফতর। হলদিয়া এনার্জিতে ২০২০ সালের মার্চ মাসে হানা দেয় সিবিআই। ২০২২ সালের অগস্ট মাসে বেদান্ত লিমিটেডে তল্লাশি চালায় ইডি।

আরও একটি চমকপ্রদ তথ্য পাওয়া গেছে নির্বাচন কমিশনের দেওয়া তালিকা থেকে। তা হল, কেবল সান্তিয়াগোর সংস্থাই নয়, বন্ড কেনার নিরিখে প্রথম ৩০টি সংস্থার ১৪টিতেই গত কয়েক বছরে তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে সিবিআই, ইডি কিংবা আয়কর দফতর (আইটি)-এর আধিকারিকেরা। ‘দি কুইন্ট’-এর একটি প্রতিবেদন অনুসারে, মেঘা ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার সংস্থার একাধিক অফিসে ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে হানা দেয় আয়কর দফতর। হলদিয়া এনার্জিতে ২০২০ সালের মার্চ মাসে হানা দেয় সিবিআই। ২০২২ সালের অগস্ট মাসে বেদান্ত লিমিটেডে তল্লাশি চালায় ইডি।নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী যারা নির্বাচনী বন্ডের মাধ্যমে নির্বাচনী অনুদান গ্রহণ করছেন তাদের মধ্যে রয়েছে বিজেপি, কংগ্রেস, এআইএডিএমকে, বিআরএস, শিবসেনার মতো দল। তবে অনুদান গ্রহণের ক্ষেত্রে আঞ্চলিক দল হয়েও দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

You may also like

Mahanagar bengali news

Copyright (C) Mahanagar24X7 2024 All Rights Reserved