যুদ্ধের প্রস্তুতি তুঙ্গে ইরানে, ট্রাম্পের মাথার দাম ঘোষণা করল সরকার

7
iran trump tensions

Highlights

  • মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মাথার দাম ঘোষণা
  • ৫.৭৬ আরব দাম ঘোষণা করল ইরান
  • যুদ্ধের আবহে বাড়ল দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা

মহানগর ওয়েবডেস্ক: এমনিতেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে রণংদেহী মেজাজে রয়েছে ইরান। যেকোনও সময় যুদ্ধের পরিবেশ তৈরি হওয়ার মত পরিস্থিতি। এই আবহে মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের মাথার দাম ঘোষণা করল ইরান। পুরস্কার মূল্য ৫.৭৬ আরব টাকা। মনে করা হচ্ছে ইরানের এই পদক্ষেপের পর দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা আরও বাড়বে। এদিকে ইরানকে স্পষ্ট হুমকি দিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ইরান যদি হামলার ছক কষে তাহলে ইরানকে ধ্বংস করে দেবে আমেরিকা। ইরানি সেনাবাহিনীর জেনারেল কাসিম সুলেইমানির শেষ যাত্রায় একটি সংস্থা ট্রাম্পের মুণ্ডচ্ছেদ করার জন্য ৮০ মিলিয়ন ডলারের পুরস্কার ঘোষণা করে। এই পুরস্কারমূল্যকে একত্রিত করার জন্য ওই সংস্থা ইরানি নাগরিকের কাছে এক ডলার করে দান করার আর্জি জানিয়েছে। উল্লেখ্য, ইরানের মসাদে সুলেইমানির অন্তিম সংস্কার করা হয়।

এদিকে ইরানকে পুরো ধ্বংস করে দেওয়ার স্পষ্টতই হুমকি দিয়ে রেখেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। অন্য এক বয়ানে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেছেন, যদি ইরান কাসিম সুলেইমানির হত্যার বদলা নেওয়ার চেষ্টা করে তাহলে আমেরিকা জবাবি হামলা চালাবে। প্রথমেই টার্গেট হবে ইরানের সাংস্কৃতিক জায়গাগুলি। সেখানে বোমা নিক্ষেপ করবে আমেরিকা। এর আগেও একাধিকবার ইরানকে হুঁশিয়ারি দিয়েছে আমেরিকা।

আমেরিকার নজরে শুধু ইরান নয়, ইরাকও। ট্রাম্প বলেছেন, যদি ইরাক সংসদে নিজেদের ভূখণ্ড থেকে মার্কিন সেনাদের ফেরৎ নিয়ে যাওয়ার আইন পাস করায় তাহলে এর বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত সবথেকে বড় পদক্ষেপ নেব। যদি ইরাক মার্কিন সেনাকে ফেরৎ যেতে বলে, যদি বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক না রাখে তাহলে ইরাকের ওপর এখনও পর্যন্ত সবথেকে বড় প্রতিবন্ধকতা লাগাবে আমেরিকা।

প্রসঙ্গত, ইরাক সংসদে তাঁদের ভূখণ্ডে মার্কিন সেনার উপস্থিতি সমাপ্ত করার জন্য আবেদন প্রস্তাবের পক্ষে ভোটাভুটি হয়। এর মূল লক্ষ্য হল ইরাকের বিভিন্ন জায়গা থেকে ৫ হাজার মার্কিন সেনাকে প্রত্যাহার করা। এর ফলে আমেরিকাকে সেনা প্রত্যাহার করতে বাধ্য হবে। আর এটাই এখন ট্র্ম্পের চোখের বালি। তাই ইরানের সঙ্গে যুদ্ধের গরমাগরম হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি ইরাককেও শাসাচ্ছে আমেরিকা। তবে ইরানের ডোনাল্ড ট্রাম্পের মাতার দাম দার্য করার খবরে রীতিমত উত্তেজনা বেড়েছে দুই দেশের মধ্যে।