ক্যান্সারের মতো মারণ রোগে আক্রান্ত রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট?

47

নিজস্ব প্রতিনিধি: ক্যান্সারের মতো মারণ রোগে আক্রান্ত রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট?  নাকি স্মৃতিভ্রংশের মতো কোনও কঠিন ব্যাধিতে ভুগছেন ভ্লাদিমির পুতিন? পুতিনের ইউক্রেন আক্রমণের নেপথ্যে রয়েছে এর কোনও একটি কারণ অথবা দুটিই। অন্তত পাঁচটি দেশের গোয়েন্দাদের জোট ফাইভ আইজ এমনটাই মনে করছে বলে দাবি বিশ্বের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের।

টানা ২০ দিন ধরে চলছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। দুই দেশের এই রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে সেনার পাশাপাশি প্রাণ হারিয়েছেন বহু নিরীহ মানুষও। ধ্বংস হয়েছে স্কুল-কলেজ-হাসপাতাল। তার পরেও নিত্য দিন বাড়ছে ধ্বংসের তীব্রতা। ঊর্ধ্বমুখী মৃত্যুর গ্রাফ।

অথচ এ যুদ্ধ হওয়ার কথা ছিল না বলেই দাবি আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশের। আবার ছিলও। কারণ ক্যান্সারের মতো মারণ অসুখে ভুগছেন তিনি। অন্তত ফাইভ আইজের দাবি তেমনই। আমেরিকা, কানাডা, ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজল্যান্ড এই পাঁচটি দেশের গোয়েন্দাদের জোট হল ফাইভ আইজ। এদের দাবি, পুতিনের সম্প্রতিক ফুটেজ থেকে মনে হচ্ছে, তাঁর শরীরে একটা ফোলা ভাব রয়েছে। কিছুটা অস্বাভাবিক আচরণও করতে দেখা যাচ্ছে তাঁকে। ঘন ঘন সিদ্ধান্তও বদল করছেন তিনি। গত পাঁচ বছরের তুলনায় যা কিঞ্চিৎ বেশিই। তাঁর এই অসংলগ্ন আচরণেই প্রকাশ দূরারোগ্য কোনও ব্যাধিতে আক্রান্ত রুশ প্রেসিডেন্ট। ফাইভ আইজের দাবি, ক্যান্সার জাতীয় কোনও মারণ রোগে ভুগছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপ্রধান। ভুগছেন স্মৃতিভ্রংশের অসুখেও। রোগ সারাতে তাঁকে নানা ধরনের স্টেরয়েড নিতে হচ্ছে। ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায়ই নানা সমস্যা দেখা দিচ্ছে পুতিনের। সেই কারণেই ইউক্রেন হামলার সিদ্ধান্ত।

পাঁচ দেশের ওই গোয়েন্দা জোটের দাবির মতো একই দাবি করেছিলেন ব্রিটিশ বিদেশ সচিব লর্ড ডেভিড ওয়েনও। তিনিও বলেছিলেন, আমার মনে হচ্ছে ওঁর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতায় সমস্যা হচ্ছে। হয় ওঁকে কোনও ধরনের স্টেরয়েড দেওয়া হচ্ছে কোনও রোগের চিকিৎসা হিসেবে। অথবা বডি লিফটিং কিংবা ওয়েট লিফটিংয়ের জন্যও স্টেরয়েড দেওয়া হতে পারে। তাঁর দাবি, এই ধরনের স্টেরয়েড থেকেই কোনও মানুষের আক্রমণাত্মক আচরণ বেড়ে যেতে পারে। বিবিসি সূত্রে এ খবর জানা গিয়েছিল। এবার আন্তর্জাতিক ওই সংবাদ মাধ্যমের মতো একই দাবি করল ফাইভ আইজও।

গোয়েন্দাদের জোট ওই দাবি করলে কী হবে, রুশ সংবাদমাধ্যমগুলি এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করেনি। তাই পুরো বিষয়টি আপাতত রয়ে গিয়েছে জল্পনার স্তরেই।