জেএনইউতে হিংসা, কেন্দ্রকে রিপোর্ট পাঠাল বিশ্ববিদ্যালয়, তদন্তে ক্রাইম ব্রাঞ্চ

4
jnu violence crime brunch

Highlights

  • জেএনইউ হিংসার রিপোর্ট পাঠাল বিশ্ববিদ্যালয়
  • কেন্দ্রকে রিপোর্ট পাঠাল জেএনইউ প্রশাসন
  • এবার তদন্ত করবে দিল্লি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ

মহানগর ওয়েবডেস্ক: দিল্লির জওহরলাল নেহরু ইউনিভার্সিটিতে রবিবারের হিংসার ঘটনায় এবার তদন্ত করবে দিল্লি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ। পুলিশ ইতিমধ্যেই এফআইআর দায়ের করেছে। যদিও এখনও পর্যন্ত কোনও অভিযুক্তকেই গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, সিসিটিভি ফুটেজ ও সোশ্যাল মিডিয়ায় যে ছবি সামনে এসেছে তার সাহায্যেই তদন্তের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে। দেশজোড়া চাপের মুখে পুরো ঘটনার রিপোর্ট চেয়ে পাঠায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও কেন্দ্রকে রিপোর্ট পাঠিয়েছে। পুরো ঘটনার দিকে নজর রেখে চলেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। এইমসে ভর্তি সব ছাত্রদের চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এই হিংসার ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুম্বই, পুণে, কলকাতা সমেত দেশের বিভিন্ন জায়গায় ছাত্র-ছাত্রীরা রাস্তায় নেমে প্রতিবাদে সরব হয়েছে। রাজনৈতিক চাপানউতোর চরমে উঠেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শীর্ষ আধিকারিকরা দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বেজলের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। ক্যাম্পাসের বর্তমান পরিস্থিতির বিষয়ে তাঁকে অবগত করেন আধিকারিকরা। এই বৈঠকেই এইমসে ভর্তি ছাত্র-ছাত্রীদের যে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে তাও বলা হয় লেফটেন্যান্ট গভর্নরকে। এক আধিকারিক জানান, এইমসের ট্রমা সেন্টার ও সফদরজং হাসপাতালে ভর্তি ৩৫ পড়ুয়াকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

জেএনইউ-এর শিক্ষক সংগঠন হিংসার কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি পাঠিয়েছে। চিঠিতে তাঁরা লিখেছেন যে, হাসপাতালে অরাজকতার পরিস্থিতি তৈরি হয়ে রয়েছে। শিক্ষক সংগঠনের অভিযোগ উপাচার্য পরিস্থিতি সামলাতে পারছেন না। তাই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক এবং পুরো বিষয়টির সঠিক তদন্ত করা হোক।

আজ সকালেই লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বেজলের সঙ্গে দেখা করেন জেএনইউ-র উপাচার্য ও রেজিস্ট্রার। এই মুহূর্তে কী পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তা ব্যাখা করেন। পুলিশ ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে কথা বলবে এবং প্রমান একত্রিত করার কাজ করবে বলে খবর।

এদিকে এই জেএনইউ-তে হিংসার ঘটনায় সারা দেশজুড়ে সাধারণ মানুষ থেকে ছাত্র সমাজ পথে নেমেছে। কর্ণাটকে বেঙ্গালুরুর টাউন হলে বিক্ষো প্রদর্শন করা হয়। এদিকে হায়দরাবাদে প্রোগ্রেসিভ স্টুডেন্ট ইউনিয়নের সদস্যরা ওসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এদিকে জেএনইউকাণ্ডের পর উত্তরপ্রদেশে আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয় সমেত বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। কলকাতায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা হিংসার ঘটনার তীব্র নিন্দা করে পথে নেমে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।