যতবার দমানোর চেষ্টা করবেন, শিক্ষার্থীরা ততবার উঠে দাঁড়াবে, গর্জন এবার কানহাইয়ার

9
kanhaiya

Highlights

  • গর্জে উঠলেন জেএনইউ ছাত্র সংসদের প্রাক্তন সভাপতি কানহইয়া কুমার
  • কেন্দ্রীয় সরকারকেই নিশানায় নিয়েছেন তিনি। কানহাইয়া লিখেছেন, এই সরকারের কোনও লজ্জা নেই
  • যখন ছাত্র-ছাত্রীদের আন্দোলনকে দমানো গেল না, তখন সরকার গুন্ডা লেলিয়ে দিল

 

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রবিবার দুষ্কৃতী হানায় রক্তাক্ত হয়েছে দেশের গর্ব জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়। মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষের। গুরুতর ছোট পেয়েছেন বাঙালি অধ্যাপিকা সুচরিতা সেন। ঘটনার প্রতিবাদে এবার গর্জে উঠলেন জেএনইউ ছাত্র সংসদের প্রাক্তন সভাপতি কানহইয়া কুমার।

রবিবার এই বর্বরোচিত ঘটনার পর একের পর এক টুইট করেন কানহাইয়া। পুরো ঘটনার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকেই নিশানায় নিয়েছেন তিনি। কানহাইয়া লিখেছেন, এই সরকারের কোনও লজ্জা নেই। প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেল ফি বাড়ানো হল৷ সেই ফি বৃদ্ধির বিরুদ্ধে ছাত্র-ছাত্রীরা যখন প্রতিবাদ জানালেন তখন পুলিশ দিয়ে তাদের পেটানো হল ৷ কিন্তু তাতেও যখন ছাত্র-ছাত্রীদের আন্দোলনকে দমানো গেল না, তখন সরকার গুন্ডা লেলিয়ে দিল। যখন থেকে এই সরকার ক্ষমতায় এসেছে, তখন থেকেই দেশের ছাত্রসমাজের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে এরা।’


নাম না করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকেও নিশানায় নিয়েছেন তিনি। লিখেছেন, ‘আপনি আজকের দ্রোণাচার্য হয়ে যেতে পারেন কিন্তু মনে রাখবেন একুশ শতকের একলব্য আপনাকে আঙ্গুল কেটে দেবে না, বরং নিজেদের মাথা কেটে ফেলে দিতে রাজি তারা। হিংসার মাধ্যমে আপনি আলিগড় এবং জামিয়ার মত জেএনইউ-কেও বন্ধ করতে চাইছেন। শিক্ষার্থীরা কিন্তু আপনার এই পরিকল্পনা খুব ভালোভাবে বুঝতে পারছে।’


পরবর্তী টুইটে কানাইয়া লেখেন, ‘আমি আবার বলছি, আপনারা যত জোরে দমানোর চেষ্টা করবেন ভারতের ছাত্র সমাজ কত বেশি করে গর্জে উঠবে। আপনার সংবিধান এবং গরীব বিরোধী সব রকমের ষড়যন্ত্র এই যুবসমাজ ব্যর্থ করবে।’