KKR VS SRH: রাসেল না খেললে সুযোগ পেতে পারেন সাকিব, সানদের নাইটমেয়ার দিতে প্রস্তুত নাইটরা

26
কেকেআর অনুশীলনে বরুণ চক্রবর্তী।

মহানগর ডেস্ক: আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ মহারণ কেকেআরের সামনে। চেন্নাই এবং পঞ্জাব- দুই কিংসের কাছে অল্পের জন্য জয় হাতছাড়া করে এই মুহূর্তে প্রবল চাপে কলকাতা নাইট রাইডার্স। যদিও ১২ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে এই মুহূর্তে লিগ টেবিলের চার নম্বরেই রয়েছে বাদশার দল।

রবিবার লাস্ট বয় সানরাইজার্স হায়দরাবাদের মুখোমুখি হচ্ছে নাইটরা। আপাত দৃষ্টিতে সহজ ম্যাচ হলেও, ‍‘পঁচা শামুকে পা কাটা’র নির্দশন আইপিএলে নেহাৎই কম নেই। তাই সানদের মুখোমুখি হওয়ার আগে বেশ সমর্থক ব্রেন্ডন ম্যাককালামের শিষ্যরা। এই মুহূর্তে অবশ্য নাইটদের প্রধান সমস্যা অধিনায়ক মরগ্যানকে নিয়েই। একেবারেই ফর্মে নেই ইংরেজ নেতা। যার ফলে নাইটদের মিডল অর্ডার একেবারেই ভঙ্গুর হয়ে পড়েছে।

চলতি আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে অর্থাৎ মরুশহরে এখনও পর্যন্ত কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে মাঠে নামা হয়নি সাকিব আল হাসানের। চার বিদেশি হিসাবে আরিশাহিতে শুরুতে খেলেছিলেন সুনীল নারিন, আন্দ্রে রাসেল, লকি ফার্গুসন এবং অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যান। তবে শেষ দুই ম্যাচে ফার্গুসনের পরিবর্তে পেস বিভাগে দায়িত্ব সামলাচ্ছেন তাঁরই স্বদেশীয় কিউই পেসার টিম সাউদি।
নারিন এবার দারুণ ফর্মে থাকায় তিনি অটোমেটিক চয়েজ। ফর্ম হাতড়ে বেড়ালেও অধিনায়ক হিসাবে মরগ্যান তো প্রথম একাদশে থাকবেনই। তবে সম্প্রতি রাসেলের চোট থাকায় শেষ দুই ম্যাচে খেলেননি তিনি। তাই গত ম্যাচে পঞ্জাব কিংসের বিরুদ্ধে আশা করা হয়েছিল, প্রথম একাদশে ফিরবেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। কিন্তু সবাইকে চমকে দিয়ে অভিষেক হয় নিউজিল্যান্ডের উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান টিম শেফার্টের। ব্রাত্য থাকেন সাকিব। যার ফলে কেকেআরের টিম ম্যানেজমেন্টকে নিয়ে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়।

এমনিতেই কেকেআরের মিডল অর্ডার বেশ নড়বড়ে। নবাগত ভেঙ্কটেশ আয়ার দারুণ ছন্দে থাকলেও, অপর ওপেনার শুভমন গিলের ধারাবাহিকতার অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। তবে তিন নম্বরে নেমে দলকে ভরসা জোগাচ্ছেন রাহুল ত্রিপাঠী। ধারাবাহিকতার অভাবে ভুগছেন নীতিশ রানাও। সেইসঙ্গে অধিনায়ক মরগ্যান শেষ কবে দলকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন, তা অতি বড় সমর্থকেরও মনে করতে বেশ বেগ পেতে হবে। দীনেশ কার্তিক মাঝেমধ্যে ‍‘ক্যামিও’ ইনিংস খেললেও, সেই ভাবে ভরসা জোগাতে পারছেন না। আর গত ম্যাচে চূড়ান্ত ব্যর্থ শেফার্ট। ফলে আশা করা হচ্ছে সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে হয়তো সাকিবকে চলতি মরশুমে প্রথমবার মরুশহরে মাঠে নামতে দেখা যাবে।

এমনিতেই নাইটদের দুই স্পিনার নারিন ও বরুণ চক্রবর্তী দারুণ ফর্মে রয়েছেন। ভেঙ্কটেশও পার্টটাইম স্পিনার হিসাবে সফল। এই অবস্থায় সাকিব যোগ দিলে স্পিন বিভাগের শক্তি যে আরও বাড়বে নাইটদের, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। কারণ, রাসেল না থাকায় পেস বিভাগ তুলনামূলক ভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছে কিং খানের দলের। প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা চোটে কাহিল। নিয়মিত উইকেট পেলেও, সিএসকের বিরুদ্ধে ম্যাচটি কার্যত একা দায়িত্ব নিয়ে হারিয়েছেন। প্রতি ম্যাচেই ভুরি ভুরি রান দিয়ে ফেলছেন এই ডানহাতি পেসার। গত ম্যাচে শিবম মাভি সুযোগ পেয়ে অবশ্য খুব একটা হতাশ করেননি। তাই পেস বিভাগে হয়তো কোনও পরিবর্তন হবে না। তবে রাসেল সুস্থ হয়ে উঠলে সাকিবের প্রথম একাদশে জায়গা পাওয়া যে বেশ কঠিন হবে, তা বলাই বাহুল্য।

এই মুহূর্তে কেকেআর সমর্থকরা মূলত তিন-চার জন ক্রিকেটারের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন জয়ের জন্য। ভেঙ্কটেশ আয়ারের পাশাপাশি বড় রানের জন্য রাহুল ত্রিপাঠীও নাইট সমর্থকদের আশার আলো। সেইসঙ্গে বোলিং বিভাগে দুই স্পিনার বরুণ ও নারিন বিপক্ষের কাছে রীতিমতো ত্রাস হয়ে উঠেছেন।

অন্যদিকে, সানরাইজার্সের আর নতুন করে কিছু পাওয়ার নেই এবারের আইপিএল থেকে। ১১টি ম্যাচ খেলে মাত্র দু’টিতে জিতেছে কেন উইলিয়ামসনের দল। কোভিড আক্রান্ত হয়ে ছিটকে গিয়েছে পেসার টি নটরাজন এবং অলরাউন্ডার বিজয় শঙ্কর। প্রাক্তন অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে নিয়ে দলের মধ্যে তৈরি হয়েছে ক্ষোভ। এই অবস্থায় ভুবনেশ্বর কুমার-রশিদ খানের বাকি ম্যাচগুলি সম্মান রক্ষার হলেও, তাঁরা ‍‘পরের যাত্রা’ ভঙ্গ করতে মুখিয়ে রয়েছেন।

কলকাতার প্লে-অফে ওঠার সম্ভাবনা এখন অনেক যদি-কিন্তুর ওপর নির্ভর করছে। তবে শনিবার দিল্লি ক্যাপিটালসের কাছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স হারায় কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে নাইট শিবির। এদিন জিততে পারলে কেকেআরকে সরিয়ে তালিকার চার নম্বরে উঠে আসতেন রোহিতরা। পাশাপাশি ব্যাকফুটে চলে যেত মরগ্যান অ্যান্ড কোং। তাই নাইটদের এখন প্রধান লক্ষ্য নিজেদের বাকি দু’টি ম্যাচে জেতা। খুশির খবর, এবারের সবথেকে দুর্বল দু’টি দলের বিরুদ্ধেই ম্যাচ বাকি রয়েছে কেকেআরের। সানদের ছাড়া তারা খেলবে রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে। রানারেটে নীচের সারির দলগুলির থেকে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন নারিন-গিলরা। সেক্ষেত্রে প্লে-অফে যাওয়ার দৌড়েও মুম্বই বা পঞ্জাব কিংসের থেকে বেশ কিছুটা এগিয়ে থাকবে কেকেআর। তাই যেনতেন প্রকারে সানদের নাইটমেয়ার দিতে মরিয়া নাইট রাইডার্স।