Kunal Ghosh: ‘এই টাকা ওঁর নয়, এটা এতদিন বলেননি কেন?’ পার্থকে প্রশ্ন কুণালের

71

মহানগর ডেস্ক: আজ ফের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে নিয়ে যাওয়ার সময় বিস্ফোরক মন্তব্য করেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee)। তিনি বলেন, ‘এই বিপুল পরিমাণ টাকা তাঁর নয়। তবে এই টাকাটা কার? এ বিষয়ে নিয়ে বেহালার বিধায়ককে কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না তৃণমূলের (TMC) মুখপাত্র কুণাল ঘোষ (Kunal Ghosh)। তিনি বলেন, উনি শেষ দু’দিন ধরে মুখ খুলছেন, একবার বললেন, আমি ষড়যন্ত্রের শিকার। এখন বলছেন টাকাটা ওঁনার নয়, তাহলে তিনি প্রথম দিন বলেননি কেন?

আরও পড়ুন: ‘এভাবে আমাদের আটকানো যাবে না’, চোটের ছবি পোস্ট করে ট্যুইট সুকান্ত মজুমদারের

কুণাল ঘোষ এদিন আরও বলেন, ‘প্রথম দিন কেন চুপ ছিলেন উনি? ওঁনার নামে একাধিক সম্পত্তি ‘অপা’র দলিল সমস্ত কিছু প্রকাশ্যে আসছে, এরপরও উনি বলছেন কোন কিছুই ওঁনার নয়, এটা কিভাবে সম্ভব? উনি যেভাবে সমস্ত কিছু অস্বীকার করছেন কোনদিনও নিয়ে বলে বসবেন, আমি পার্থ চট্টোপাধ্যায় কি না নিজেই জানি না। বলবেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে চিনি না। ওঁর যা বক্তব্য আদালতে বলুন। টাকা উদ্ধার হচ্ছে, অপার ছবি, আঙুলের ছাপ, দলিল বেরোচ্ছে, দুনিয়ার জিনিস বেরোচ্ছে। তারপরও উনি অস্বীকার করছেন!’

প্রসঙ্গত, পার্থ ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ডায়মন্ড সিটির ফ্ল্যাটের পর থেকে বেলঘরিয়া ফ্ল্যাট থেকেও বিপুল পরিমাণ টাকা উদ্ধার হয়। আর তারপর থেকেই কুণাল ঘোষ, দেবাংশু ভট্টাচার্যের মতো তৃণমূলের নেতারা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মন্ত্রিত্ব এবং দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ খারিজের দাবি জানাতে শুরু করে। এমন পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং দলের শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটির তরফ থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের মন্ত্রী এবং দলের সমস্ত রকম পদ থেকে বরখাস্ত করেন পার্থকে।

এদিন জোকার ইএসআই হাসপাতালের বাইরে দেখা যায় থিক থিকে ভিড়। কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্রবল নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে গাড়ি থেকে নামানো হয় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। তারপর হুইল চেয়ারে করে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে ভিতর। এমন সময় পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে দেখে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন, পার্থবাবু কে ষড়যন্ত্র করেছেন? কে ষড়যন্ত্র করেছে বলুন? উত্তরে তিনি বলেন, “সময় এলেই সেটা জানতে পারবেন।” এরপর এই বিপুল পরিমাণ টাকা কোথা থেকে পেলেন পার্থ বাবু? এই প্রশ্ন করা হলে, তিনি বলেন ওঠেন, “আমার কোনও টাকা নেই, আমার কোনও টাকা নেই, আমার কোনও টাকা নেই।”