Lata-Shoaib : ‘মা বলে ডেকো আমাকে’,শোয়েবকে ফোনে বলেছিলেন লতা, সুরের সরস্বতীর বিসর্জনে শোকাহত রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস

55
কিংবদন্তি শিল্পীকে নিয়ে কথোপকথনে গল্পের ঝাঁপি খুলে বসলেন শোয়েব আখতার

মহানগর ডেস্ক : রবিবার সকালে আচমকাই সুর হারালো গোটা ভারত। সুরের সরস্বতীর চলে যাওয়া যেন মেনে নিতে পারছেন না এখনও পর্যন্ত কেউ। দীর্ঘ ২৮ দিনের লড়াইয়ে অবশেষে ছেদ পড়ল। করোনা এবং নিউমোনিয়ার সঙ্গে লড়াই করতে করতে ফিরে গেলেন লতা মঙ্গেসকার।

মুম্বাইয়ের ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। ধীরে ধীরে যদিও অবস্থান অনেকটা উন্নতি হয়েছিল। এমনকি নেগেটিভ আসে করোনা রিপোর্ট। ভেন্টিলেশন থেকেও বার করা হয়েছিল তাঁকে। আচমকাই শনিবার রাতে ফের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে তাঁর। আর রবিবার সকালেই সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন লতা মঙ্গেশকর। তাঁর গুণমুগ্ধ শুধু ভারতে আটকে নেই। সীমান্ত পেরিয়ে তা পৌঁছে গিয়েছে পাকিস্তানেও।

পাকিস্তানের একাধিক ক্রিকেটার,মন্ত্রী,এমনকি শোক বার্তা পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কিংবদন্তি শিল্পীকে নিয়ে কথোপকথনে গল্পের ঝাঁপি খুলে বসলেন শোয়েব আখতার। ফোনে কথা হয়েছিল লতা মঙ্গেশকরের সঙ্গে। সেখানেই জানালেন কথোপকথনের সময় লতাজি তাঁকে মা বলে ডাকতে বলেছিলেন। সঙ্গে তিনি জানিয়েছিলেন শচীন এবং শোয়েবের লড়াই নাকি সবথেকে বেশি উপভোগ করতেন তিনি।

ক্রিকেটপ্রেমী হিসেবে পরিচিত লতামঙ্গেসকার। আবেগপ্রবন হয় শোয়েব আখতার তাঁর নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে বলেছেন,’ আমাকে তিনি মা বলে ডাকতে বলেছিলেন।তাঁর সুন্দর ব্যবহারে আমি মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলাম। তার সঙ্গে সামনাসামনি সাক্ষাৎ করতে চেয়েছিলাম। যদিও সেই সময় নবরাত্রি চলছিল। উনি আমাকে দুদিন পর তাঁর সঙ্গে দেখা করতে যেতে বলেছিলেন। যদিও দেশে ফেরার টিকিট থাকার কারনে আমাকে ফিরতে হয়েছিল। তবে পরের বার ফিরবো এবং দেখা করব নিশ্চিত করেছিলাম। দেখা আর হয়নি তাঁর সঙ্গে। ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্ক অবনতি হওয়ার কারণে ভারতে আসা হয়নি আমার। দেখাও হয়নি ওর সঙ্গে। এটা আমার জীবনের সবথেকে বড় আফসোস’।

প্রসঙ্গত তিনি জানিয়েছেন নুরজাহান,মেহেদী হাসান এনাদের প্রত্যেককে তিনি খুব ভালোবাসতেন। নুরজাহানকে নিজের দিদির বলে মনে করতেন সঙ্গে জানিয়েছেন,সুরসম্রাজ্ঞী শোয়েবকে উপদেশ দিয়েছিলেন। প্রথম নিজের বিনম্র ব্যবহার এবং দ্বিতীয় মানুষের পাশে থাকায় এবং তাঁকে সাহায্য করা।

Lata-Shoaib