লেওয়ানডস্কির প্রশংসায় পঞ্চমুখ মেসি

28

মহানগর ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের কারণে বাতিল করা হয়েছিল ২০২০ সালের ব্যালন ডি অর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। সেই বছর ব্যালন পাওয়ার সব থেকে যোগ্য দাবিদার ছিলেন বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ট লেওয়ানডস্কি। অন্য যে কোনও ফুটবলারের চেয়ে অনেকগুণ ভালো পারফরম্যান্স ছিল তাঁর। কিন্তু সেটি পাননি লেওয়ানডস্কি।

সোমবার রাতে দেওয়া হল ২০২১ সালের ব্যালন ডি অর পুরস্কার। যেখানে রেকর্ড সপ্তমবারের মতো এই পুরস্কার ঝুলিতে পুরেছেন লিওনেল মেসি। পুরস্কার নেওয়ার পর মেসি বলেছেন, ২০২০ সালে ব্যালন লেওয়ানডস্কিকে দিয়ে দেওয়া উচিত। লেভাই সবথেকে বড় দাবিদার ছিলেন জানিয়ে মেসি বলেছেন, ‘আমি বিশেষভাবে রবার্ট লেওয়ানডস্কির কথা বলতে চাই। তোমার সঙ্গে লড়াই করা সত্যিই অনেক সম্মানের। সবাই জানে এবং আমরা প্রত্যেকে মানি, গত বছর তুমিই ছিলে এই পুরস্কারের যোগ্য দাবিদার।’

ব্যালন ডি অর পুরস্কারটি দিয়ে থাকে ফ্রান্সের এক ফুটবল ম্যাগাজিন। তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বিশ্বের অন্যতম সেরা ফুটবলার বলেন, ‘আমি মনে করি ফ্রান্স ফুটবলের উচিত তোমাকে তোমার ২০২০ সালের ব্যালন ডি অর দিয়ে দেওয়া। তুমি এটার প্রাপ্য এবং এটা তোমার ঘরে থাকা উচিত।’ মেসি আরও যোগ করেন, ‘লেওয়ানডস্কি দারুণ একটি বছর কাটিয়েছে। বছরের পর বছর নিজেকে নতুন উচ্চতায় তুলেছে এবং দেখিয়েছে সে কতটা ভালো একজন স্ট্রাইকার। পাশাপাশি তার গোল করা ক্ষমতাও অনেক বেশি।’

ব্যালন না পেলেও প্রথমবারের মতো প্রবর্তিত সেরা স্ট্রাইকারের পুরস্কার উঠেছে লেওয়ানডস্কির হাতে। সে দিকে ইঙ্গিত করে মেসি বলেন, ‘চলতি বছর ও সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছে। অবশ্যই সামনের বছর নিজেকে পরের ধাপে উন্নীত করার অনুপ্রেরণা পাবে ও। মাঠে নিজের ছাপ রাখার জন্য ধন্যবাদ। ও অনেক বড় ক্লাবের হয়ে খেলে।’

এদিকে, সর্বোচ্চ সপ্তম ব্যালন জেতার পর নিজের আনন্দ লুকিয়ে রাখতে পারেননি পিএসজির সুপারস্টার মেসি। বরাবরের মতো স্বল্পভাষী মেসি মূলত ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাঁর পাশে থাকা সবাইকে। সেইসঙ্গে নিজের আনন্দের কথাও বলেছেন মেসি। তিনি বলেন, ‘আমি সবসময় দলগত সাফল্যকে এগিয়ে রাখি। তবু আরও একটি ব্যালন ডি অর জেতার আনন্দ লুকিয়ে রাখতে পারছি না। আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।’ সর্বকালের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার আরও বলেন, ‘আমি এটি উৎসর্গ করছি আমার সকল সতীর্থ ও আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের কর্মীদের। আর্জেন্টিনা, বার্সেলোনা ও পিএসজিতে দারুণ একটি বছর কাটিয়েছি আমি।’

তিনি আরও বলেন, ‘অবশ্যই আমার পরিবার ও বন্ধুবান্ধবকে উৎসর্গ করছি এই ট্রফি। পাশাপাশি যারা সবসময় আমাকে সমর্থন দিয়েছেন, আমার পাশে থেকেছেন এবং প্রতিনিয়ত পারফর্ম করতে সাহায্য করেছেন তাদেরও উৎসর্গ করছি এই পুরস্কার। আপনাদের সবাইকে ছাড়া এটি কোনও দিন সম্ভব হত না। অবশ্যই ফ্রান্স ফুটবলকে ধন্যবাদ এত সুন্দর আয়োজন ও পুরস্কারের জন্য। অনেক ভালোবাসা।’