Mahalaya 2021 : ‘শুভ মহালয়া’ বলার আগে জেনে নিন দিনটি আদৌ শুভ কিনা

34
মহাভারতের পাশাপাশি কৃত্তিবাসী রামায়ণেয় মহালয়ার উল্লেখ পাওয়া যায়

মহানগর ডেস্ক : পিতৃপক্ষ শেষ হয়ে সূচনা হয় দেবীপক্ষের। আর সেই সূচনা কালকেই বলা হয় মহালয়া। যদিও মহালয়া নিয়ে একাধিক ধারণা প্রচলিত রয়েছে। তবে প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক মহালয়া শব্দের অর্থ কী? মহা অর্থাৎ মহৎ এবং আলয় শব্দের অর্থ আশ্রয়। মহৎ আলয় অর্থাৎ দেবী দুর্গার কল্যানাশ্রয়ে এই দিনের সূচনা হয় বলে একে মহালয়া বলা হয় ।তবে মহালয়া নিয়ে অনেক সনাতন কাহিনী প্রচলিত রয়েছে। বিশেষ দিনে প্রয়াত আত্মাদের মর্তে প্রেরণ করা হয়। এবং তাঁদের উদ্দেশ্যে অন্ন জল পরিবেশন করেন তাঁদের পরিবারের লোক। একইভাবে পুরান মতেও মহালয়ার বিভিন্ন সংজ্ঞা বর্তমান।

আজ সেই পূর্ণ তিথি। পিতৃপক্ষের শেষ লগ্নে পূর্বপুরুষদের অন্নজল অর্পণ করা হয়। তবে মহালয়া শুভ না অশুভ এই নিয়ে একাধিক কথা প্রচলিত রয়েছে। যদিও কোন পৌরাণিক বা শাস্ত্রে শুভ না অশুভ ব্যাখ্যা সেভাবে যায়নি। আবার যদি মহাভারতের দিক দিয়ে বিবেচনা করা হয় তাহলে আশ্বিনের তিথিতে কর্নের পিতৃপুরুষকে জল দান করে স্বর্গে ফিরে যাওয়ার কাহিনী উল্লেখ করা যেতে পারে। আজীবন পিতৃপরিচয় থেকে বঞ্চিত থাকা কর্ণ যখন জানতে পারে তাঁর পিতৃপরিচয় তখন তিনি মর্তে আসেন পূর্বপুরুষের উদ্দেশ্যে জল এবং খাদ্য দান করতে। তারপর পুনরায় তিনি স্বর্গে ফিরে যান।

আবার পুরান মতে বলা হয় ব্রহ্মার বরে মহিষাসুর অমর হয়েছিলেন ঠিকই কিন্তু হার নিশ্চিত করা হয়েছিল এক নারী শক্তির কাছে। অসুরের অত্যাচারে অতিষ্ঠ দেবতারা একত্রে সৃষ্টি করেন এক নারী শক্তির। আর তিনি হলেন দেবী দুর্গা। এই দিনেই দেবী দুর্গা মহিষাসুরকে বধ করে অশুভ শক্তির বিনাশ করেন বলে অনেকে দিনটিকে শুভ বলে বিবেচনা করেন।

মহাভারতের পাশাপাশি কৃত্তিবাসী রামায়ণেয় মহালয়ার উল্লেখ পাওয়া যায়। লঙ্কা বিজয়ের পর রামচন্দ্র অকাল বোধনের মাধ্যমে দেবীর আরাধনা করেছিলেন। দেবীর চোখ একে এই সন্ধিক্ষণে আরাধনা করেছিলেন বলে একে অকালবোধন বলা হয়। তবে আদতেই সেটি শুভ না অশুভ সেই নিয়ে বিতর্ক এখন চলছে। তবে মহালয়া অশুভ অনুষ্ঠান না হলেও একটি দুঃখের দিন অবশ্যই। কারণ মৃত ব্যক্তিদের স্মরণ করে এই দিনটি উদযাপন করেন অনেকে।

Mahalaya 2021